kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্যান্টের বেল্টে গলায় ফাঁস নিল ছোট্ট মেহেদী!

বগুড়া অফিস    

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৬:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্যান্টের বেল্টে গলায় ফাঁস নিল ছোট্ট মেহেদী!

টানা বৃষ্টির কারণে স্কুলে না গিয়ে ছোট ভাইয়ের সাথে মোবাইল ফোনে ভিডিও গেম খেলছিল ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র মেহেদী হাসান (১২)। বিষয়টি দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে তার মা নাজমা বেগম বকা দিয়ে মোবাইল ফোনটি কেড়ে নেন। এতে অভিমান করে বাড়ির বাইরে গিয়ে একটি মুরগির খামারে নিজের প্যান্টের বেল্ট দিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে মেহেদী আত্মহত্যা করে বলে জানায় পরিবার।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়নের নাটমরিচাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

মেহদী হাসান ওই গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে এবং স্থানীয় মোলামগাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে বৃষ্টির অজুহাতে স্কুলে না গিয়ে মেহেদী তার ছোট ভাই মহি উদ্দিনকে সাথে নিয়ে মোবাইল ফোনে ভিডিও গেম খেলতে শুরু করে। তাদের মা নাজমা বেগম বিষয়টি দেখে স্কুল না যাওয়ার কারণে ছেলেকে বকা দিয়ে হাত থেকে মোবাইল ফোনটি কেড়ে নেন। কিছুক্ষণ পর মেহেদী বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। দীর্ঘসময় সে বাড়িতে না ফেরায় বাবা-মা তাকে খুঁজতে বের হন। একপর্যায়ে বাড়ির পাশের পরিত্যাক্ত এক মুরগির খামারের বাঁশের আড়ায় (তীর) সাথে প্যান্টের বেল্ট গলায় পেঁচানো অবস্থায় মেহেদীকে ঝুলতে দেখেন তারা। সেখান থেকে তাকে নামিয়ে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

শিবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আইনুল হক লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরিবারের সদস্যরা বলছেন ভিডিও গেম খেলতে নিষেধ করায় ওই স্কুল ছাত্র অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে। তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করতে লাশের ময়না তদন্ত প্রয়োজন। একারণে লাশ উদ্ধার করে একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা দিয়ে ময়না তদন্তের জন্য তা মর্গে পাঠানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা