kalerkantho

শনিবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ৯ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৭ সফর ১৪৪৪

চোর ধরাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, বৃদ্ধ নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৭:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চোর ধরাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, বৃদ্ধ নিহত

প্রতীকী ছবি

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে চোর ধরাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আব্দুর রাজ্জাক (৫০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার কোমরকান্দী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে এবং কুমারখালী জগন্নাথপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সহকারী পদে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গতকাল শুক্রবার রাতে আকরাম বিশ্বাসের ছেলে শহিদুলের নেতৃত্বে তার লোকজন এক চোরকে ধরে রাজ্জাকের বাড়ির সামনে নিয়ে মারধর করে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় আব্দুর রাজ্জাক তার বাড়ির সামনে চোরকে মারতে নিষেধ করেন। পরে তারা ওই চোরকে নিয়ে একটু দূরে গিয়ে আবারও মারতে থাকে। এক পর্যায়ে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। পুলিশকে খবর দেওয়ার ব্যাপারে আব্দুর রাজ্জাককে সন্দেহ করে শহিদুল ও তার লোকজন।

এরই জেরে আজ শনিবার সকালে রাজ্জাক বাড়ির পাশের দোকানে চা খেতে যাওয়ার সময় শহিদুল ও রাজ্জাকের মধ্যে প্রথমে বাগবিতণ্ডা ও পরে  হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে তাদের দুই গ্রুপের লোকজনের মধ্যে আবারও সংঘর্ষ বাধে। এক পর্যায়ে শহিদুল গ্রুপের লোকজনের অস্ত্রের আঘাতে আব্দুর রাজ্জাক আহত হন।  পরে স্থানীয়রা তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় নিহত রাজ্জাকের স্ত্রী রেবেকা খাতুন ও ছেলে রাশেদ শেখসহ তিনজন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।  

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, চোর ধরাকে কেন্দ্র করে সকালে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে আব্দুর রাজ্জাক নিহত হন। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।  



সাতদিনের সেরা