kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

চিকিৎসা দিয়েও ভেসে আসা ডলফিনটি বাঁচানো যায়নি

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

২৩ আগস্ট, ২০২২ ২৩:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চিকিৎসা দিয়েও ভেসে আসা ডলফিনটি বাঁচানো যায়নি

কক্সবাজারের ইনানী সৈকতে আজ মঙ্গলবার একটি জীবিত ডলফিন ভেসে আসে। সাগরের জোয়ারের পানিতে ভেসে আসা ডলফিনটিকে বাঁচানোর জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়; কিন্তু এটিকে বাঁচানো যায়নি।

জোয়ারের পানিতে আজ সকাল ১১টার দিকে ডলফিনটি ইনানী সৈকতে ভেসে আসে। সেখানে কর্তব্যরত বিচকর্মীরা ডলফিনটিকে বারবার গভীর পানির দিকে ঠেলে দিলেও ঢেউয়ের তোড়ে আবার ভেসে আসে সামুদ্রিক প্রাণীটি।

বিজ্ঞাপন

এভাবে ঘণ্টা দুয়েক বিচকর্মীরা চেষ্টা করেছেন পানিতে ভাসিয়ে দিতে; কিন্তু তা সম্ভব না হওয়ায় তাঁরা জেলা প্রশাসন ও বন বিভাগের কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানান।  

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সুফিয়ান জানান, ডলফিনটি ভেসে আসার খবর পাওয়া মাত্র বন বিভাগ ও সামুদ্রিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তাদের খবর দেওয়া হয়। তাঁরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যান।

কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. সরোয়ার আলম বলেন, ‘আমি আমার কর্মী ও সামুদ্রিক গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরাসহ ইনানী সৈকতে গিয়ে ডলফিনটিকে জীবিত পেয়েছিলাম। তৎক্ষণাৎ ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ভেটেরিনারি চিকিৎসককে এনে চিকিৎসার ব্যবস্থাও করি; কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাঁচানো গেল না। ’

সরোয়ার আলম জানান, আনুমানিক আড়াই বছর বয়সের ডলফিনের ওজন সাড়ে ২৮ কেজি। ধারণা করা হচ্ছে, এটি সাম্প্রতিক দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সময় সাগরে ডুবে যাওয়া কোনো নৌকা বা অন্য কিছুর সঙ্গে ঢেউয়ের তোড়ে ধাক্কা খেয়ে আহত হয়েছিল।

বিকেলে কক্সবাজার সামুদ্রিক গবেষণা ইনস্টিটিউটে ডলফিনটির ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এটার হৃৎপিণ্ডে রক্তের জমাট পাওয়া গেছে। ফুসফুসের অবস্থাও ভালো ছিল না। তাই আমাদের প্রাথমিক ধারণা, এটি অসুস্থ ছিল এবং এ কারণে মৃত্যু হতে পারে। তবে এটার প্রজাতি চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি। ’

তিনি আরো বলেন, এটির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নমুনা পাঠানো হবে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজিতে (এনবইবি)।



সাতদিনের সেরা