kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

উত্তাল নদী, জোয়ারে চরফ্যাশন উপকূলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি   

১৯ আগস্ট, ২০২২ ১৭:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উত্তাল নদী, জোয়ারে চরফ্যাশন উপকূলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ভোলার চরফ্যাশনে উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও অমাবস্যার জোয়ারের প্রভাবে নদ-নদীর পানি বেড়ে উপকূল বাঁধের বাইরে ও ভেতরের নিচু এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) সকালে মেঘনা নদীর পানি বিপৎসীমার ৫৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে শুক্রবার সন্ধ্যা নাগাদ তলিয়ে গেছে চরফ্যাশন উপকূলের বিস্তীর্ণ জনপদ। অতিজোয়ারে উপজেলার অন্তত পাঁচ-ছয়টি নিচু এলাকা জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন

জোয়ারের পানিতে ফসলের ক্ষেত, রাস্তা-ঘাট, বসতভিটা, খামার ও পুকুর, ঘের তলিয়ে গেছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন চরফ্যাশন উপকূলের বিস্তীর্ণ জনপদের নিম্নআয়ের মানুষ।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, চর কুকরিমুকরি, চর পাতিলা, ঢালচর, জাহানপুর ভাসানী আদর্শ গ্রাম, চর মাদ্রাজ ও হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের কিছু অংশ জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে। এসব এলাকার বসবাসকৃত মানুষ চরম দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে।
অপরদিকে সকাল থেকে প্রচুর বাতাস বইছে। এতে নদী উত্তাল হয়ে উঠেছে।

সাগরতীরবর্তী দ্বীপচর কুকরিমুকরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম মহাজন বলেন, বাঁধের কাছাকাছি বসবাসরত মানুষের বাড়ি, পুকুর, মাছের ঘের তলিয়ে যাওয়ায় তারা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। অতিরিক্ত জোয়ারে বেশির ভাগ নিম্নাঞ্চল ডুবে আছে।

বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ঢালচর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম হাওলাদার বলেন, অতিরিক্ত জোয়ারে বেশির ভাগ নিম্নাঞ্চল ডুবে আছে। মানুষ ঘরবন্দি হয়ে পড়েছে।

চরফ্যাশন পানি উন্নয়ন বোর্ড ডিভিশন-২ (পাউবো)-এর নির্বাহী প্রকৌশলী মাহমুদুল হাসান জানান, শুক্রবার বিকেল থেকে মেঘনার জোয়ারের পানি বিপৎসীমার ৫৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে বাঁধের বাইরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।



সাতদিনের সেরা