kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ অক্টোবর ২০২২ । ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

মারিয়াকে মেরে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়েছে, অভিযোগ ভাইয়ের

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১৯ আগস্ট, ২০২২ ১২:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মারিয়াকে মেরে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়েছে, অভিযোগ ভাইয়ের

গৃহবধূ মারিয়া আক্তার

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে মোছা. মারিয়া আক্তার (১৯) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। তাকে হত্যার পর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে মারিয়ার বড় ভাই মারুফ হোসেন অভিযোগ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মির্জাপুর উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়নের গোড়াকী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  

পুলিশ ও মারিয়ার পরিবার জানায়, গত সাত মাস আগে তরফপুর ইউনিয়নের ডৌহাতলী গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার মেয়ে মারিয়া আক্তারের সাথে সিঙ্গাপুর প্রবাসী শাকিল খানের বিয়ে হয়।

বিজ্ঞাপন

শাকিল একই উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়নের গোড়াকী গ্রামের বাবর আলী ওরফে বাবু খানের ছেলে। বিয়ের কয়েক দিন পর থেকেই তাদের দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। এ নিয়ে শাকিল মাঝে মধ্যে মারিয়ার ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতেন। বিয়ের দু'মাস পর শাকিল সিঙ্গাপুর চলে যান। বিদেশ থেকেও শাকিল তার স্ত্রী মারিয়াকে মুঠোফোনে গালিগালাজ করতেন বলে মারুফ জানান।  

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে শাকিল তার ভাড়া করা লোকজন দিয়ে মারিয়াকে হত্যার পর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখতে পারে বলে অভিযোগ মারুফের।   

মারিয়ার বড় ভাই মারুফ হোসেন জানান, রাতে খবর পেয়ে আমরা বোনের বাড়ি গিয়ে দেখি ঘরের দরজা খোলা। মারিয়া ফ্যানের সাথে ঝুলছিল। কিন্তু পা খাটের মধ্যে ভাজ হয়ে আছে। ওরা আমার বোনকে হত্যার পর ফ্যানের সাথে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রেখেছে। আমি বোনের হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করছি।  

এ বিষয়ে শাকিল খানের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।  

লতিফপুর ইউপির ৩ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার মো. আমিন উদ্দিন জানান, শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে মারিয়ার ভালো সম্পর্ক ছিলো। তবে স্বামীর সঙ্গে মারিয়ার কী হয়েছে তা আমি বলতে পারবো না।  

লতিফপুর ইউপির চেয়ারম্যাান মো. আলী হোসেন রনির সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, পুলিশ মারিয়ার মরদেহ উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।  

মির্জাপুর থানার ডিউটি অফিসার মো. আরিফ তালুকদার জানান, সুরতহাল শেষে মারিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। থানায় ইউডি মামলা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।  



সাতদিনের সেরা