kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সড়ক যেন মারণফাঁদ, চেয়ারম্যান বললেন ফান্ড নেই

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

১৮ আগস্ট, ২০২২ ২২:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়ক যেন মারণফাঁদ, চেয়ারম্যান বললেন ফান্ড নেই

রংপুর-সুন্দরগঞ্জ ডিসি সড়কের দেবী চৌধুরাণী হাটসংলগ্ন এলাকায় পাকা সড়কের নিচের মাটি পুকুরে নেমে যাওয়ায় গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে পথচারীরা। দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচল করলেও সংস্কারের উদ্যোগ নেই কর্তৃপক্ষের। ফলে দুর্ঘটনা এড়াতে গর্তটিতে ময়লা-আবর্জনা ফেলে, লাল নিশান টানিয়েছেন স্থানীয়রা।

বিজ্ঞাপন

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় পাঁচ মাস আগে রংপুর-কান্দি-সুন্দরগঞ্জ ডিসি সড়কে পীরগাছার দেবী চৌধুরাণী হাটের পূর্ব পাশে গর্তের সৃষ্টি হয়।  প্রতিদিন ওই সড়কে ছোট-বড় সহস্রাধিক যানবাহন চলাচল করে।  গর্তটি পাঁচ থেক সাত ফুট গভীর হওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচল করছে। এসব যানবাহন প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হয় বলে জানায় স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সড়কের একপাশে পাঁচ-সাত ফুট গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। অপর পাশে পিচ উঠে দেড় থেকে দুই ফুট গর্তে বৃষ্টির পানি জমে আছে। ফলে যানবাহন চালকসহ যাত্রী ও পথচারীরা ঝুঁকির পাশাপাশি দুর্ভোগে পড়ছে।

স্থানীয় দোকানি শেরআলী বলেন, এই স্থানে প্রতিদিন ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটছে। তাই ময়লা-আবর্জনা দিয়ে গর্তটি ভরাট করে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া গর্তে লাল নিশান দিয়ে রাখা হয়েছে, যাতে চলাচলকারীরা সতর্কতার সঙ্গে যাওয়া-আসা করে।

ওই স্থানের পাশের সাইকেল মেকানিক হোসেন আলী বলেন, দিনের বেলা কোনো রকমে চলাচল করা গেলেও রাতে অসম্ভব হয়ে পড়ে। প্রতি রাতে কোনো না কোনো যানবাহন দুর্ঘটনায় পতিত হয়।

এ বিষয়ে স্থানীয় কৈকুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান নূর আলম মিয়া বলেন, ‌'আমার পরিষদে তো ফান্ড নেই। তাই গর্তটি ভরাটের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে জানিয়েছি। '

উপজেলা প্রকৌশলী মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ওই সড়কে চৌধুরাণী থেকে কান্দি পর্যন্ত সংস্কারকাজ প্রক্রিয়াধীন। যখন সংস্কারকাজ শুরু হবে, তখন গর্তটিও ভরাট করা হবে।

পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীন বলেন, সড়কের গর্তটি ভরাটে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



সাতদিনের সেরা