kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

দুর্ধর্ষ পাঁচ জলদস্যু আটক, উদ্ধার করা হয় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

১৩ আগস্ট, ২০২২ ০০:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুর্ধর্ষ পাঁচ জলদস্যু আটক, উদ্ধার করা হয় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র

চাঁদপুর ও মুন্সীগঞ্জ জেলার পদ্মা নদীর সীমানায় অভিযান চালিয়ে ৫ জন জলদস্যুকে আটক করেছে নৌ পুলিশ। এসময় উভয়পক্ষের গুলি বিনিময়ের পর তাদের কাছ থেকে ১৪টি দেশি অস্ত্র, একটি স্পিডবোট, ২০টি মুঠোফোন এবং দুটি পাইপগান উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত দীর্ঘ কয়েক ঘণ্টা অভিযানের পর এসব জলদস্যুকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার পদ্মা নদীর কাউদিয়ার চর থেকে নৌ পুলিশ, চাঁদপুর অঞ্চলের সদস্যরা।

এই নিয়ে শুক্রবার সকাল ১১টায় চাঁদপুরে নৌ পুলিশের আঞ্চলিক কার্যালয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন

এসময় বিস্তারিত তথ্য জানান, নৌ পুলিশের চাঁদপুর অঞ্চল প্রধান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান।

তিনি জানান, গত কয়েকদিন ধরে চাঁদপুর ও মুন্সীগঞ্জের পদ্মা নদীতে জলদস্যুর উপদ্রব বেড়েছে। গোপনে এমন সংবাদের ভিত্তিতে এই অভিযান চালানো হয়। নৌ পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, এসব জলদস্যুকে আটক করার সময় তারা পুলিশের প্রতি কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে পুলিশও শর্টগান থেকে পাল্টা ছোড়ে। পরে দীর্ঘ কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হচ্ছে, আক্তার হোসেন (৩০), ইকবাল মুন্সি (২৮), আবুল বাশার (২২), শাকিল দেওয়ান (২১) এবং মো. ইয়ামিনের (২০) মুন্সিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন জায়গায়।

এই অভিযানে সরাসরি অংশ নেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন সিকদার, উপপরিদর্শক জহিরুল হক, সহকারী উপপরিদর্শক শহিদুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন কনস্টেবল।

এদিকে, আটক হওয়া জলদস্যুরা সবাই পেশাদার। তাদের অনেকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। অন্যদিকে, আটক জলদস্যুদের বিরুদ্ধে নৌ পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। পরে আদালতের মাধ্যমে এই ৫ জলদস্যুকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা