kalerkantho

শুক্রবার । ৭ অক্টোবর ২০২২ । ২২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্রবাসীর কষ্টের টাকার বাগান, সাবাড় করল দুর্বৃত্তরা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

১২ আগস্ট, ২০২২ ২০:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রবাসীর কষ্টের টাকার বাগান, সাবাড় করল দুর্বৃত্তরা

পঞ্চগড়ে রাতের আঁধারে বিভিন্ন জাতের গাছ কেটে সাবাড় করেছে দুর্বৃত্তরা

পঞ্চগড় সদর উপজেলায় রাতের আঁধারে এক প্রবাসীর চা বাগানের ভেতরের পেঁপে, সুপারি, নারিকেল ও মেহগনির প্রায় পাঁচ হাজার গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। এতে প্রবাসীর প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। বিদেশে থেকে কষ্টার্জিত রেমিটেন্সের করা বাগানের এই হাল দেখে দিশেহারা ওই প্রবাসী।

জানা যায়, পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাসিন্দা মিজানুর রহমান সিদ্দিকী তিন দশকের বেশি সময় ধরে যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

প্রবাস থেকে কষ্টের টাকা পাঠিয়ে পঞ্চগড় সদর উপজেলা চাকলাহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাটিয়াপাড়া এলাকায় প্রায় ২২একর জমি ওপর গড়ে তোলেন চা বাগান। নাম দেন সিদ্দিকী টি এস্টেট। পরিচ্ছন্ন ও দৃষ্টিন্দন চা বাগানের ভেতরেই করেছেন পেঁপে, সুপারি, পেঁয়ারা, মেহগনি, নারিকেল ও আমের বাগান। ৬০ জন নারী পুরুষের কর্মসংস্থান হয়ে সেখানে। দুষ্টি নন্দন বাগানটি দেখতে প্রতিদিনই ভিড় করেন স্থানীয়রা।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সকালে চা পাতা তুলতে গিয়ে বাগানের এ দৃশ্য দেখে চমকে ওঠেন শ্রমিকরা। রাতের আঁধারে প্রায় ৫ হাজার গাছ নির্বিচারে কেটে ফেলে গেছে দুর্বৃত্তর। তার মধ্যে সুপারি ও পেঁপের গাছ বেশি।

এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, জেলা পরিষদ প্রশাসক আনোয়ার সাদাত সম্রাট, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, সদর থানার ওসি আব্দুল লতিফ মিঞাসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ক্ষতিগ্রস্ত বাগানটি পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

বাগানের শ্রমিক সুমি আক্তার বলেন, আমি বারো বছর ধরে এই বাগানে কাজ করছি। আজকে সকালে বাগানের চিত্র দেখে স্তব্ধ হয়ে গেছি। যারা গাছের সাথে এমন অমানবিকতা করতে পারে তারা অমানুষ ছাড়া কিছু না।

বাগানের ম্যানেজার আনিছুর রহমান বলেন, খুব যন্ত করে বাগানটি সাজানো হয়েছিল। পেঁপে, নারিকেল, সুপারি, মেহগনির প্রায় পাঁচ হাজার গাছ এক পাশ থেকে সব কেটে সাবাড় করে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এখন আমরাও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

বাগানের মালিক প্রবাসী মিজানুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, বিদেশে থেকে কষ্ট করে দেশের জন্য-মানুষের জন্য কাজ করার স্বপ্ন দেখি সব সময়। তাই চা বাগানের সাথে বিভিন্ন ফলের বাগান করেছি। এখানে অনেকে কাজ করে সংসার চালায়। কারো সাথে আমার শত্রুতা নেই। কারা রাতের আঁধারে বাগানের গাছগুলো এভাবে কাটলো আমার মাথায় আসছে না। এতে আমার প্রায় ৫০ লাখ টাকার সম্পদ নষ্ট হয়েছে।

পঞ্চগড় সদর থানার ওসি আব্দুল লতিফ মিঞা বলেন, রাতের আঁধারে সিদ্দিকী টি এস্টেটে দুষ্কৃতিকারীরা তাণ্ডব চালিয়েছে। আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

পঞ্চগড় জেলা পরিষদের প্রশাসক আনোয়ার সাদাত সম্রাট বলেন, মিজানুর রহমান আমেরিকায় থেকে ১৫ বছর ধরে এই বাগানটি তিল তিল করে গড়ে তুলেছেন। আমরা চাই প্রশাসন যেন গুরুত্ব দিযে বিষয়টি দেখে। কারণ প্রবাসীরা যেন কোনোভাবেই দেশে কিছু করতে নিরুৎসাহিত না হয়।



সাতদিনের সেরা