kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ অক্টোবর ২০২২ । ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ছিনতাইয়ের ‘ফাঁদ পাতেন’ তারা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১১ আগস্ট, ২০২২ ১৫:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ছিনতাইয়ের ‘ফাঁদ পাতেন’ তারা

বাড়ি ভিন্ন এলাকায়। কারো সঙ্গে কোনো আত্মীয়তার সম্পর্কও নেই। কিন্তু পরিচয় দেন স্বামী-স্ত্রী। এই পরিচয়ে অটোরিকশা ভাড়া নেন তারা।

বিজ্ঞাপন

এরপর কৌশলে অটোরিকশা ছিনতাই করাই তাদের পেশা।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে একটি ইজি বাইক ছিনতাইকালে তাদের আটক করে স্থানীয়রা। এ সময় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের নান্দাইল বালিকা বিদ্যালয়ের মার্কেটের সামনের সড়কে তাদের পিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।  

অটোরিকশার চালক উপজেলার চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের ধুরুয়া গ্রামের মো. জাকিরুল ইসলাম জানান, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ী থেকে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে তার অটোরিকশাটি রিজার্ভ করেন তারা। নান্দাইল পৌরসভায় প্রবেশ করতেই নারী যাত্রী তাকে অটোরিকশাটি একটি গলিতে প্রবেশ করতে বলেন। সেখানে একটি বাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার আনতে পাঠান তাকে। কিছুদূর যেতেই ওই নারীকে আর দেখতে পান না তিনি। দ্রুত ফিরে তিনি তার অটোরিকশাটি অন্য কাউকে চালিয়ে যেতে দেখে ধাওয়া করেন। এক পর্যায়ে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের নান্দাইল বালিকা বিদ্যালয়ের মার্কেটের সামনে থেকে কয়েকজন যুবক অটোরিকশাটি আটক করেন।

পরে জানা যায়, তারা স্বামী-স্ত্রী সেজে এভাবেই ইজি বাইক ছিনতাই করেন। গণপিটুনির সময় খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে নারী নিজেকে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মাইজবাগ এলাকার আল-আমীনের স্ত্রী শিরিন আক্তার আঁখি বলে পরিচয় দেন। অন্যদিকে পুরুষ নিজের নাম নাঈম ইসলাম বলে জানান। তিনি নান্দাইল উপজেলার মহেষকুড়া আবাসিক প্রকল্পের বাসিন্দা বলে দাবি করেন।

নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, দীর্ঘদিন ধরে তারা এভাবেই কৌশলে চালককে ফাঁদে ফেলে ইজি বাইক ছিনতাই করে আসছিলনে। তাদের একটি বড় চক্রও রয়েছে। মামলার পর গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে চক্রটির সন্ধানের চেষ্টা করা হবে।



সাতদিনের সেরা