kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

গাজীপুরে বাসে ধর্ষণ: ৫ আসামির স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর    

৮ আগস্ট, ২০২২ ১২:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গাজীপুরে বাসে ধর্ষণ: ৫ আসামির স্বীকারোক্তি

গাজীপুরে তাকওয়া পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৫ আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। রবিবার বিকেলে আসামিদের পৃথক তিনজন মহানগর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারকদের কাছে ধর্ষণ ও ডাকাতিতে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে পৃথক জবানবন্দি প্রদান করে।  

এদিকে, রবিবার দুপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসক ডা. এএনএম আল মামুন জানান, পরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

তারপরও ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হতে ডিএনএ পরীক্ষা জন্য আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।   

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্রীপুর থানার পরিদর্শক আজিজুর রহমান জানান, গ্রেপ্তার পাঁচ আসামি স্ব-স্ব আদালতের বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। পরে বিচারক তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে বিকেলে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ঘটনার বিষয়ে ব্রিফিং করে পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ বলেন, সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে প্রথমে বাসটি শনাক্ত করা হয় পরে। পরে প্রযুক্তির সহায়তায় প্রথমে শ্রীপুরের কদমতলী এলাকা থেকে বাস চালক, হেলপার ও কন্ট্রাকটরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গাজীপুর মহানগরীর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকা থেকে অপর দুইজনকে গ্রেপ্তার ও বাসটি জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত অভিযুক্ত ধর্ষক বাসচালক সুমন খান (২০) নেত্রকোনা জেলার সদর উপজেলার গুপিরঝুপা গ্রামের মৃত সানোয়ারের ছেলে, হেলাপর সজিব (২৩) ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার কাঁঠালকাচারি গ্রামের মৃত কফিলের ছেলে, কন্ট্রাকটর শাহিন (১৯) একই জেলার হালুয়াঘাট থানার বিলডোলা গ্রামের তুলা মিয়ার ছেলে, রাকিব মোল্লো (২৩) নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার দরিপাড়া গ্রামের আলী আকবরের ছেলে এবং সুমন হাসান (২২) খুলনা জেলার রূপসা থানার খান মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত নুর আলমের ছেলে।

উল্লেখ্য, নওগাঁ থেকে শনিবার ভোর ৩টার দিকে গাজীপুর মহানগরের ভোগড়া বাইপাসে স্বামীর সঙ্গে নামেন এক নারী। ভোর ৩টা ১০মিনিটে স্কয়ার মাস্টারবাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে তাকওয়া পরিবহনে উঠেন। পথে বাসটির চালক ও তার সহযোগীরা স্বামী-স্ত্রীর সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন, ব্যাগ, নগদ ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে সেই নারীর স্বামীকে মারধর করে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেয়। এরপর ওই বাসের চালক, হেলপারসহ ৫ জন ওই নারীকে ধর্ষণ করে। এরপর দুষ্কৃতিকারীরা বাসটি আবার ঘুরিয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সদর থানাধীন রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় স্ত্রীকে নামিয়ে দেয়।



সাতদিনের সেরা