kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

ভোলায় বিএনপির হরতাল চলছে, শহরে র‍্যাব-পুলিশের টহল

ভোলা প্রতিনিধি   

৪ আগস্ট, ২০২২ ১০:২২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভোলায় বিএনপির হরতাল চলছে, শহরে র‍্যাব-পুলিশের টহল

ভোলায় পুলিশ সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষে ছাত্রদল সভাপতি ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতার মৃত্যুর প্রতিবাদে ডাকা হরতাল পালিত হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ভোলা শহরে কোনো দোকানপাঠ খুলতে দেখা যায়নি। এ সময় যাত্রীবাহী যান চলাচলও বন্ধ ছিল।  

বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা শহরের রাস্তায় থেকে থেকে বিক্ষোভ করলেও কোথাও সড়ক অবরোধ অথবা টায়ারে আগুন দিতে দেখা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

শহরে শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালিত হলেও শহরের বাইরে হরতাল শিথিল রেখেছে বিএনপি।

এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করা জেলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলমের মরদেহ বেলা ১১টায় ঢাকার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জানাজা শেষে ভোলায় নিয়ে আসা হবে। বিকেলে ভোলার আলতাজের রহমান কলেজ মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করার কথা রয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) ভোর থেকে দেখা যায়, ভোলা শহরের মধ্যে সদর রোড, খেয়াঘাট সড়ক, বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল সড়ক, ইলিশা সড়ক, মুসলিম পাড়া সড়কসহ শহরের কোনো সড়কে গাড়ি চলতে দেখা যায়নি। তবে শহরের বাইরে বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল বাসস্ট্যান্ড থেকে দূরপাল্লার গাড়ি চলাচল অব্যাহত ছিল।

শহরের কালীনাথ রায়েরবাজার, বাংলা স্কুল মোড়, বরিশাল দালান, কালিখোলা, সরকারি স্কুলের মোড়, ইলিশা বাসস্ট্যান্ডসহ প্রতিটি মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। র‍্যাব ও পুলিশের টহলদল গাড়িতে সাইরেন বাজিয়ে শহর প্রদক্ষিণ করছে।   

জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের সেলিম বলেন, ‘গত রবিবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে পুলিশ বিএনপির ডাকা শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে কোনো কারণ ছাড়াই অতি উৎসাহী হয়ে গুলি চালিয়ে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুর রহিম মাতব্বর ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নুরে আলমকে হত্যাসহ শতাধিক নেতাকর্মীকে আহত করেছে। তারই বিচার ও প্রতিবাদে আজকের এই হরতাল পালিত হচ্ছে। ভোলার সমস্ত মানুষ এ আন্দোলন পালন করছে। এই আন্দোলন সারা দেশে ছড়িয়ে যাবে। এ আন্দোলন থেকে সরকার পতনের ডাক দেব। ’

উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠে আছে। তারা গাড়ির চালকদের বুঝিয়ে গাড়ি বন্ধ রেখেছে। কোনো অপ্রীতিকর অবস্থা সৃষ্টি করছে না। সাধারণ জনতা স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করছে। তারা দোকানপাঠ খোলেনি।

ভোলা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনায়েত হোসেন বলেন, র‌্যাব পুলিশ মিলিয়ে সাতটি টহলদল শহরে অভিযান চালাচ্ছে। ৯টা পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কেউ আটক হয়নি। শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রয়েছে।



সাতদিনের সেরা