kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

চকরিয়ায় মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ পদপ্রত্যাশীদের

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

২ আগস্ট, ২০২২ ০০:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চকরিয়ায় মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ পদপ্রত্যাশীদের

দীর্ঘদিন পর কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার পর প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে একই পদের প্রত্যাশীরা।

সোমবার (১ আগস্ট) রাত পৌনে ৯টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে তারা। এতে সড়কের উভয় দিকে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

অবশ্য তাৎক্ষণিক পুলিশের তৎপরতায় অবরোধকারীরা সড়ক থেকে সরে গেলে প্রায় ২০ মিনিট পর যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নিয়ে দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়- মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখার অন্তর্গত চকরিয়া উপজেলা শাখা কমিটি বিলুপ্ত করা হলো এবং সেই সঙ্গে আগামী এক বছরের জন্য চকরিয়া উপজেলা শাখার নিম্নোক্ত কমিটি অনুমোদন দেওয়া হলো।

৩১ জুলাই রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ কর্তৃক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পদে নিযুক্ত করা হয়েছে সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরহান মাহমুদ রুবেল ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকিত হোসেন সজিবকে।

মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধকারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা দাবি করেছেন- চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার জন্য বেশ কয়েকজনের কাছ থেকে জেলা ছাত্রলীগ জীবন-বৃত্তান্ত জমা নেয় প্রায় এক বছর আগে। কিন্তু এত দিনেও জেলা ছাত্রলীগ চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করেনি। হঠাৎ করে গত রবিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে- কেন্দ্র থেকে আরহান মাহমুদ রুবেলকে সভাপতি ও আকিতকে সাধারণ সম্পাদক নিযুক্ত করা হয়েছে। যার মধ্য দিয়ে তৃণমূলের ত্যাগী, পরিচ্ছন্ন, শিক্ষিতদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। কোনো ধরনের যাচাই-বাছাই না করে কেন্দ্র থেকে ছাত্রলীগ নেতা তারেকুল ইসলাম রাহিত হত্যাচেষ্টা মামলার আসামিসহ দুজনের পকেট কমিটি চাপিয়ে দেওয়ায় তৃণমূল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে মহাসড়ক অবরোধ করেছিল। তবে সেই অবরোধ কিছুক্ষণ পর তুলে নেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্র এবং জেলা ছাত্রলীগের প্রতি তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি- অবিলম্বে পকেট কমিটি বাতিল করে সৎ, পরিচ্ছন্ন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি অবিচল থাকা এবং মামলার আসামি নয় এমন ছাত্রদের সমন্বয়ে কমিটি দিতে হবে।

গত রবিবার রাতে কেন্দ্র থেকে এই কমিটি ঘোষণা পর নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে একটি স্ট্যাটাস দেন তারেকুল ইসলাম রাহিত। তিনি সভাপতি পদের প্রত্যাশী ছিলেন। নতুন কমিটি ঘোষণার পর নিজে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে যাচ্ছেন মর্মে আবেগঘন কথাবার্তা লিখে সবার কাছ থেকে বিদায় চান।

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে তাকে রাতের আঁধারে হত্যার উদ্দেশ্যে সশস্ত্র হামলা চালায় ছাত্রলীগেরই বেশ কয়েকজন। আরহান মাহমুদ রুবেলের নেতৃত্বে এই হামলার অভিযোগে থানায় মামলাও করেছিলেন তারেক। পরবর্তী সময়ে আরহান মাহমুদ রুবেলসহ বেশ কয়েকজনকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করে।

তবে কেন্দ্র থেকে সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত করা আরহান মাহমুদ রুবেল বলেছেন- রাজপথে যাদের ত্যাগ রয়েছে তাদেরকেই যাচাই-বাছাই করে কেন্দ্র থেকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিযুক্ত করা হয়েছে। আর যারা টায়ার জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেছিল তারা ছাত্রলীগের কেউ নয়। আমরা তাদের এই অপতৎপরতা প্রতিহত করব।

মহাসড়ক অবরোধ প্রসঙ্গে চকরিয়া থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিপুলসংখ্যক পুলিশ গিয়ে অবরোধকারীদের সরিয়ে দিলে ফের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।  



সাতদিনের সেরা