kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

পরিবারের ওপর হামলা, ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৪ জুলাই, ২০২২ ১৭:২১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পরিবারের ওপর হামলা, ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

পরিবারের নামে মিথ্যা অভিযোগে হামলা, মামলা ও হয়রানির অভিযোগ এনে সিরাজগঞ্জের এক ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন কবি মোহন রায়হান। রবিবার সকালে সিরাজগঞ্জ প্রেস ক্লাবের হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।   

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কবি মোহন রায়হান বলেন, জনতা ব্যাংক সিরাজগঞ্জ শহরের এস বি ফজলুল হক রোড শাখার ম্যানেজার আরাফাত শাকিলের নেতৃত্বে আমার পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। সম্প্রতি আমার বোন ফরিদা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন অভিযোগে চেক বাউন্স ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বাবা-মা, ভাই-বোন, আমাকেসহ গোটা পরিবারের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার চালিয়ে সম্মানহানি করা হচ্ছে। আমার বোন সানলাইফ ইনস্যুরেন্স সিরাজগঞ্জের কো-অর্ডিনেটর ফরিদা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের মিথ্যা অভিযোগ এনে গ্রাহকদের ভুল বুঝিয়ে তার বাড়িতে হামলা ও মামলা করানো হয়েছে।

কবি মোহন রায়হান অভিযোগ করে বলেন, ১০ মাস আগে ঘটনার সূত্রপাত। আমার খালাতো ভাই ব্যাংক ম্যানেজার আরাফাত শাকিল তার বাড়ির সাবেক কাজের মেয়ে নুরজাহান খাতুন তুর্কিকে রাস্তার ওপর মারধর ও নির্যাতনের অভিযোগে আটক হয়েছিলেন। ওই ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলা পরিচালনার দায়িত্ব নেন আমার বোন ফরিদা ইয়াসমিনের স্বামী অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা এবং মামলার সাক্ষী হন ফরিদা ইয়াসমিন নিজে। এ থেকেই ব্যাংক কর্মকর্তা আরাফাত শাকিল ও তার স্ত্রী কলেজ শিক্ষিকা তানজুম আরা রকু আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে সানলাইফ ইনস্যুরেন্সের কিছু গ্রাহককে ভুল বুঝিয়ে ফরিদার বাড়িতে হামলা চালানো হয়। যার নেতৃত্ব দেন ব্যাংক কর্মকর্তা আরাফাত শাকিল। পরে কম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গ্রাহকের একটি টাকাও ফরিদা আত্মসাৎ করেনি।

ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, সান লাইফ ইনস্যুরেন্সের সিরাজগঞ্জ জেলায় ১০ হাজারের মতো গ্রাহক রয়েছে। এর মধ্যে বীমার মেয়াদোত্তীর্ণ গ্রাহকের সংখ্যা এক হাজারের মতো। কিন্তু আমার বাসায় হামলা চালিয়েছে মাত্র ২৪ জন গ্রাহক।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সানলাইফ ইনস্যুরেন্সের সিরাজগঞ্জ সদর শাখা ব্যবস্থাপক আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, ফরিদা ইয়াসমিন কোনো টাকা আত্মসাৎ করেননি। গ্রাহকদের উসকে দিয়ে তার বাড়িতে হামলা করানো হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সানলাইফ ইনস্যুরেন্স কম্পানির ডিএমডি আসলামুল হক বলেন, দুই বছর করোনার কারণে কম্পানি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ কারণে বীমার টাকা যথাসময়ে গ্রাহকদের ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে পর্যাক্রমে সবার টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। ফরিদা ইয়াসমিন কোনো টাকা আত্মসাৎ করেননি।   

সংবাদ সম্মেলনে জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর ভূঁইয়া, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাট্যজন মমিন বাবু, সরকারি রাশিদাজ্জোহা মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আখতারুজ্জামান, মোহন রায়হানের ছোট ভাই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মঞ্জুর রহমান বকুল ও বোনজামাই অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফাসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে জনতা ব্যাংক সিরাজগঞ্জ শহরের এস বি ফজলুল হক রোড শাখার ম্যানেজার আরাফাত শাকিল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি কবি মোহন রায়হানের পরিবারের কাউকে চিনি না। আমার স্ত্রী বীমার কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াসমিনের কাছে ১০ লাখ টাকা পায়, আমি সেই টাকা উত্তোলনের জন্য ঘটনার সময় ফরিদার বাড়িতে গিয়েছিলাম।

 



সাতদিনের সেরা