kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

তাড়াশে প্রতিপক্ষের মারধরে কৃষকের মৃত্যু, ছেলে আহত

সিরাজগঞ্জ ও তাড়াশ প্রতিনিধি   

২১ জুলাই, ২০২২ ১৭:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তাড়াশে প্রতিপক্ষের মারধরে কৃষকের মৃত্যু, ছেলে আহত

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে সুদের পাওনা টাকা নিয়ে দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের মারধরে গোলবার হোসেন (৪৮) নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তার ছেলে শাকিলও (২৪) আহত হয়েছেন। বুধবার রাতে উপজেলার দেশীগ্রাম ইউনিয়নের আড়ংগাইল বাজারে এ ঘটনা ঘটে। নিহত গোলবার আড়ংগাইল গ্রামের মৃত আজাহার আলীর ছেলে।

বিজ্ঞাপন

আহত শাকিলকে তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: এ এস এম রাকিবুল হাসান জানান, গোলবার হোসেন ও তার ছেলে শাকিলকে হাসপাতালে নিয়ে এলে গোলবার হোসেনকে বগুড়া রেফার্ড করা হয়। আর শাকিলকে তাড়াশ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।  

তাড়াশ থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, আহত অবস্থায় বগুড়ায় নেওয়ার পথে গোলবার হোসেনের মৃত্যু হয়। সংবাদ পেয়ে রাতেই মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহ আজ সকালে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।  টাকা লেনদেন সংক্রান্ত বিষয়ে পূর্বশত্রুতার জেরে এই মারধরের ঘটনা ঘটেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

নিহতের ভাই আব্দুল মজিদ বলেন, 'গোলবার অগ্রহায়ণ মাসে প্রতিবেশী আল আমিনের কাছ থেকে বাকিতে পাঁচ মণ ধান ক্রয় করেন।   টাকা দিতে দেরি হওয়ায় সুদসহ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে সে আরো সময় নেয়। সম্প্রতি ধানের দাম হিসাবে সাত হাজার টাকা পরিশোধ করে গোলবার। কিন্তু সুদের টাকা দিতে না পারায় কোরবানির ঈদের দুই দিন আগে উভয়ের পরিবারের মধ্যে ঝগড়া হয়। বিষয়টি মীমাংসার জন্য ১৯ জুলাই (মঙ্গলবার) এলাকায় সালিস হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আল আমিন ও তার স্বজনরা সিদ্বান্ত অমান্য করায় সালিস হয়নি। এ অবস্থায় বুধবার সন্ধ্যার পর আড়ংগাইল বাজারে শাকিলকে তার চায়ের দোকানে পেয়ে লাঠিসোঁটা দিয়ে মারধর শুরু করেন আল আমিন ও তার স্বজনরা। এ সময় শাকিলের বাবা গোলবার ও আমি ঠেকাতে গেলে তারা আমাদেরও মারধর করে। স্থানীয়রা এসে সবাইকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। '  

 



সাতদিনের সেরা