kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সরিষাবাড়ীতে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি   

২১ জুলাই, ২০২২ ০৯:২৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সরিষাবাড়ীতে ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় ফেইজবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে হানিফ পালোয়ান নামে এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। বুধবার (২০ জুলাই) রাতে উপজেলা পরিষদের আবাসিক কলোনিতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হানিফ উপজেলার সাতপোয়া ইউনিয়নের চর সরিষাবাড়ী গ্রামের ট্রাক চালক ছাহের পালোয়ানের ছেলে ও সরিষাবাড়ী রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার উচ্চ বিদ্যালয়ের এস এস সি পরিক্ষার্থী।  

হানিফ পালোয়ান মৃত্যুর আগে ফেইজবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে লিখেন, ‘আমার মরার জন্য কেও দায়ে না আমার একটা bike কুপ কিন্তে এইসসা হইসিল কিন্তু আমার মা বাবা আমারে bike কি না দেই নাই তাই আমি নিজ এইসাই এই দুনিয়ায় থাকে চলে জাইতাসি বেচে তাক লে bike নিয়া দেখা হবে good bye bd,।

বিজ্ঞাপন

’ (আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী না। আমার একটা বাইক কেনার খুব ইচ্ছা ছিল। কিন্তু আমার বাবা-মা বাইক কিনে দেয়নি। তাই আমি নিজ ইচ্ছায় এই দুনিয়া থেকে চলে যাচ্ছি। বেঁচে থাকলে বাইক নিয়ে দেখা হবে। গুডবাই)।  

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সুত্র জানায়, নিহত হানিফ পালোয়ানের ছোট থেকেই মোটরসাইকেল চালানোর ব্যাপক আগ্রহ ছিল। পুরাতন একটি মোটরসাইকেল পরিবারের পক্ষ থেকে কিনে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তার শখ ছিল নতুন একটি মোটরসাইকেল কিনে চালানোর। টাকা জোগাড়ের চেষ্টা চলছিল। কিন্তু আবেগবশত বুধবার রাত ১০টার দিকে ফেইসবুকে পোস্ট দিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।  

নিহত হানিফ পালোয়ানের চাচা শাহীনুর রহমান বলেন, ছেলেটি বাবা-মায়ের খুবই আদরের সন্তান ছিল। যখন যা আবদার করতো তাই পূরণ করার চেষ্টা করা হতো। কিন্তু মোটরসাইকেল যেহেতু অনেক টাকার ব্যাপার তাই টাকা জোগাড় করতে বিলম্ব হওয়ায় বাবা-মার সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করে। আমাদের কারও প্রতি কোনো অভিযোগ নেই।  

সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. দেবাশীষ রাজবংশী বলেন, হানিফ পালোয়ান নামে এক শিক্ষার্থীকে রাত সাড়ে ১০ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার আত্মীয়স্বজন নিয়ে আসে। কিন্তু ছেলেটি হাসপাতালে আনার আগেই মারা যায়।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার পুলিশ উপ পরিদর্শক মুর্শেদ আলম কালের কণ্ঠকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরিবারের অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 



সাতদিনের সেরা