kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

গোলাম মাওলা রনির বাসভবন ভাঙার পর মালামাল নিলামে বিক্রি

গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

২০ জুলাই, ২০২২ ২১:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোলাম মাওলা রনির বাসভবন ভাঙার পর মালামাল নিলামে বিক্রি

পটুয়াখালীর গলাচিপার উলানিয়া বাজারের অকৃষি চান্দিনা জমি একসনা বন্দোবস্ত নিয়ে শর্ত ভঙ্গ করে দোতলা পাকা বাড়ি নির্মাণ করায় দ্বিতীয় দিনে মোট ছয়টি স্থাপনা সম্পূর্ণ ও আংশিক উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর মধ্যে চলমান উচ্ছেদ অভিযানে বুধবার দ্বিতীয় দিনে সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির বাসভবন সম্পূর্ণ উচ্ছেদ করা হয়।

বুধবার বিকেলে শুধু গোলাম মাওলার ভবনের ইট, রড, বালুসহ বিভিন্ন মামালাম নিলামে বিক্রি করে দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন অভিযান পরিচালনাকারী প্রধান জেলা প্রশাসনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল কাইয়ুম, গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশিষ কুমার। নিলামে বিক্রীত মালামালের মূল্য দুই লাখ ৬৫ হাজার টাকা সরকারি কোষাগারে জমা করা হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

অভিযান পরিচালনাকারী দলের সদস্য গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশিষ কুমার বলেন, উলানিয়া বন্দরে দুই দিন ধরে উচ্ছেদ অভিযান চলছে। বুধবার পর্যন্ত সম্পূর্ণ ও আংশিকভাবে মোট ছয়টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এর মধ্যে একটির বিভিন্ন মালামাল দুই লাখ ৬৫ হাজার টাকায় নিলামে বিক্রি হয়েছে। বিক্রির এ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা হবে।

গলাচিপা উপজেলার উলানিয়া বন্দরের যে জমিতে সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলার অবৈধভাবে দোতলা ভবনটি অবস্থিত, ওই ভবনের দুই শতাংশ জমি তার পরিবারের সদস্যদের নামে একসনা বন্দোবস্ত দেওয়া হয়। ২০০৭-০৮ অর্থবছরে উলানিয়া মৌজার এক নম্বর খাস খতিয়ানের ৩১৪-১৬ নম্বর দাগে গোলাম মাওলার নামে আধা শতাংশ, তার স্ত্রী কামরুননাহারের নামে আধা শতাংশ, ৩১৪-১৬ এবং ২-৫৪ দাগে গোলাম মাওলার বাবা সামসুদ্দিন মুন্সির নামে আধা শতাংশ এবং মা মনোয়ারা বেগমের নামে আধা শতাংশ জমি একসনা বন্দোবস্ত দেওয়া হয়। ২০০৭-০৮ অর্থবছরে ওই দুই শতাংশ জমি বন্দোবস্ত নেওয়া হলেও তা আর নবায়ন করা হয়নি।



সাতদিনের সেরা