kalerkantho

শনিবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ৯ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৭ সফর ১৪৪৪

আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগে একজন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ জুলাই, ২০২২ ২১:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগে একজন গ্রেপ্তার

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনে ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় জালিয়াতির মাধ্যমে অন্যের আড়াই কোটি টাকা তুলতে গিয়ে ধরা পড়েছেন জালিয়াতচক্রের এক সদস্য। এ ঘটনায় জালিয়াতচক্রের সদস্য শাহ আলমকে আটক করে পুলিশে দেওয়া হয়। আজ বিকেলে চট্টগ্রাম জেলা প্রশসানের ভূমি অধিগ্রহণ কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।  

জেলার মিরসরাই অর্থনৈতিক জোন প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণ করা ৩ দশমিক ৫০ একর জমির বিপরীতে প্রায় আড়াই কোটি টাকা বরাদ্দ হয় জমির রেকর্ডীয় মালিক মৃত খায়রুল বশরের স্ত্রী ও সন্তানদের নামে।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু এই বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার জন্য ভূমি অধিগ্রহণ কার্যালয়ের জালিয়াতচক্রের সদস্য শাহ আলম জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ কার্যালয়ে ক্ষতিপূরণের টাকা উত্তোলন করার জন্য জমির মূল মালিক খায়রুল বশরের  স্ত্রী ও ওয়ারিশগণের কাছ থেকে রেজিস্ট্রি আমমোক্তারনামার মাধ্যমে আবেদন করেন।

এই জমির ক্ষতিপূরণ গ্রহণের একাধিক আবেদন পাওয়ায় ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা ও সার্ভেয়ার আমমোক্তার এ বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত হওয়ার জন্য বিষয়টি যাচাই-বাছাই করেন। যাচাই-বাছাই শেষে আমমোক্তার দলিলটি সন্দেহজনক হলে তারা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এলএ) মাসুদ কামালকে অবহিত করেন। শাহ আলমসহ অপর আবেদনকারী সাইফুল ইসলাম (যিনি শাহ আলমের দাখিলকৃত আমমোক্তার) দলিলের একজন আমমোক্তারদাতা বক্তব্য গ্রহণ করেন। এ সময় সাইফুল ইসলাম আমমোক্তার নিযুক্ত সংক্রান্ত বিষয়টি অস্বীকার করেন এবং দলিলটি জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে সৃষ্টি করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। পরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নিজে অপর আবেদনকারী শামসুননাহার এবং তার মা মোছাম্মৎ আর জাহান রীনার সাথে ফোনে কথা বললে তাদের কাছ থেকে নেওয়া রেজিস্ট্রি আমমোক্তারনামা দলিলটি জালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে সৃষ্টি করা হয়েছে বলে জানান।



সাতদিনের সেরা