kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

মিয়ানমার সফরে গিয়ে বৈঠক করলেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক   

৩ জুলাই, ২০২২ ২৩:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মিয়ানমার সফরে গিয়ে বৈঠক করলেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই

গত বছর অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলের পর এবারই প্রথম মিয়ানমার সফরে গেলেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। গতকাল রবিবার সকালে সেখানে মিয়ানমার, লাওস, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া ও ভিয়েতনামের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি।

গত শুক্রবার মিয়ানমারের সামরিক সরকারের মুখপাত্র মেজর জেনারেল জাও মিন তান রাজধানী নেপিডোতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এ বৈঠকে অংশগ্রহণের বিষয়টি মিয়ানমার সরকারের সার্বভৌমত্ব এবং সরকারকে স্বীকৃতি দিচ্ছে।

জাও মিন তান সে সময় জানান, মন্ত্রীরা ওই বৈঠকে সমঝোতা স্মারক এবং চুক্তি স্বাক্ষর করবেন।

বিজ্ঞাপন

তবে এই ব্যাপারে বিস্তারিত আর কোনো তথ্য দেননি তিনি।  

২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি নির্বাচিত সরকারের কাছ থেকে ক্ষমতা কেড়ে নেয় মিয়ানমারের সামরিক সরকার। গৃহবন্দি হন রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি। এরপর দেশজুড়ে অস্থিরতা ও গণতন্ত্রকামীদের প্রতিরোধ দেখা দেয়।  

অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারসের তৈরি করা তালিকা অনুসারে, মিয়ানমারের প্রতিরোধ আন্দোলনের ওপর জান্তা সরকারের দমন-পীড়নে প্রাণ হারিয়েছে দুই হাজার ৫৩ বেসামরিক লোক।  

এর আগে অভ্যুত্থানের মাত্র তিন সপ্তাহ আগে অং সান সু চির সঙ্গে দেখা করতে মিয়ানমার সফরে গিয়েছিলেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।  

চীন মিয়ানমারের সবচেয়ে বড় বাণিজ্য অংশীদার এবং পুরনো বন্ধুরাষ্ট্র। দেশটির তেল ও গ্যাস পাইপলাইন এবং অন্যান্য অবকাঠামোর পেছনে শত শত কোটি ডলার বিনিয়োগ করেছে বেইজিং। এ ছাড়া রাশিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে মিয়ানমারের প্রধান অস্ত্র সরবরাহকারীও চীন।  

সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা দখলের পেছনে চীনের মদদ ছিল—এমনটা সন্দেহ মিয়ানমারের অনেকেরই। বেইজিং দেশটির সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখল প্রশ্নে কোনো নিন্দা জানাতে রাজি হয়নি। চীনের দাবি, তারা অন্য দেশের কর্মকাণ্ডে হস্তক্ষেপ না করার নীতি অনুসরণ করে থাকে। সূত্র : আলজাজিরা।



সাতদিনের সেরা