kalerkantho

শনিবার । ১৩ আগস্ট ২০২২ । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৪ মহররম ১৪৪৪  

বেড়ানোর কথা বলে নিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর যাবজ্জীবন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৯ জুন, ২০২২ ১৭:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেড়ানোর কথা বলে নিয়ে স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর যাবজ্জীবন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেরে চার সন্তানের জননী স্ত্রী ফাতেমা খাতুনকে (৪০) পরিকল্পিতভাবে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যার দায়ে স্বামী মো. আলাউদ্দীনকে (৫৩) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তাঁকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো তিন বছর কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

আজ বুধবার (২৯ জুন) দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের দায়রা জজ মোহা. আদীব আলী আসামির উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডিত আলাউদ্দীন সদর উপজেলার নতুন ইসলামপুর (খুসবুর মণ্ডলেরটোলা) গ্রামের মৃত মনসুর রহমানের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

মামলার নথি ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) নাজমুল আজম সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৭ জুন সকালে স্ত্রী ফাতেমাকে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে সঙ্গে নিয়ে বের হয় আলাউদ্দীন। পরদিন ২৮ জুন সকালে সদর উপজেলার চর অনুপনগর গ্রামের একটি ক্ষেতে ফাতেমার ক্ষতবিক্ষত লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় ওই দিনই সদর থানায় আলাউদ্দীনসহ চারজনের নামে হত্যা মামলা করেন নিহতের পিতা আব্দুর রাজ্জাক।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার তৎকালীন ওসি খন্দকার গোলাম মর্তুজা ২০১৫ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর আলাউদ্দীনকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ১৫ জনের সাক্ষ্য, প্রমাণ ও শুনানি শেষে বুধবার আদালত আলাউদ্দীনকে দোষী সাব্যস্ত করে দণ্ডাদেশ প্রদান করেন। আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট নুরে আলম সিদ্দিকী আসাদ।



সাতদিনের সেরা