kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

হল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে রাতে ইবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৬ জুন, ২০২২ ২৩:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে রাতে ইবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামী ২ জুলাই থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছুটি শুরু হচ্ছে। ছুটি শুরুর দুই দিন আগে ৩০ জুলাই থেকে আবাসিক হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের আগেই আবাসিক হল বন্ধের এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছেন। রবিবার রাত পৌনে ৯টায় ক্যাম্পাসের জিয়া মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন ছাত্ররা।

বিজ্ঞাপন

একই সময় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুনেছা মুজিব হলে ছাত্রীরাও বিক্ষোভ করেন।

ছাত্ররা মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা এসে আগামীকাল প্রভোস্ট কাউন্সিল ও শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে বসে সমাধানের আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা সমাধানের জন্য আগামীকাল সোমবার সকাল ১১টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন। এর মধ্যে সমাধান না করলে আবারো আন্দোলনের হুমকি দেন। ছাত্রদেরকে আশ্বাসের বিষয়টি জানার পর ছাত্রীরাও আন্দোলন স্থগিত করেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ‘হল আমার ঠিকানা, বন্ধ হতে দেব না’, ‘হল বন্ধের সিদ্ধান্ত, মানি না, মানবো না,’ ‘৩০ তারিখে হল বন্ধ চলবে না, চলবে না’ সহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।  
শিক্ষার্থীদের দাবি, ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের আগেই আবাসিক হল বন্ধের সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক। বেশ কয়েকটি বিভাগে পরীক্ষা চলমান রয়েছে। ফলে হল বন্ধ হলে তাদের আবাসন সংকটে পড়তে হবে। হঠাৎ ছুটি ঘোষণায় টিকিট করা নিয়েও বেশ ঝামেলা পোহাতে হবে। তারা ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের পর হল বন্ধের দাবি জানান। একইসঙ্গে তারা সারা বছর আবাসিক হল খোলা রাখার অনুরোধ জানান।

সহকারী প্রক্টর শফিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে আগামীকাল সোমবার সকাল ১০টায় প্রভোস্ট, প্রক্টরিয়াল বডি ও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক ইয়াসমিন আরা সাথী বলেন, প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভায় সকলের মতামতের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমাদের কাছে বিষয়টি সমীচীন মনে হয়েছে বলে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।



সাতদিনের সেরা