kalerkantho

সোমবার । ১৫ আগস্ট ২০২২ । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৬ মহররম ১৪৪৪

পুলিশের ছদ্মবেশে ডাকাতি, মালামালসহ গ্রেপ্তার ৫

নরসিংদী প্রতিনিধি   

২৪ জুন, ২০২২ ১৬:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুলিশের ছদ্মবেশে ডাকাতি, মালামালসহ গ্রেপ্তার ৫

নরসিংদীর রায়পুরায় পুলিশের ছদ্মবেশে ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত মালামালসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময়  দুই সেট পুলিশের পোশাক, এক জোড়া হ্যান্ডকাফ, একটি বেল্ট, ২০০ ইউএস ডলার, ২০০০ সৌদি রিয়াল, ১১ হাজার টাকা ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত নোহা গাড়ি জব্দ করা হয়। আজ শুক্রবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পশ্চিম মেড্ডা এলাকার জয়নাল আবেদীন (৪৮), একই এলাকার মো. রাজিব মিয়া (৩৩), মো. শাহজাহান মিয়া (৬০), একই জেলার নবীনগর উপজেলার সোয়াগ্রাম এলাকার মো. জাহাঙ্গীর আলম (৫০), কুমিল্লার হোমনা উপজেলার দৌলতপুর এলাকার মো. নাজির আহম্মেদ (৫৮)।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, রায়পুরার বীরশ্রেষ্ঠ মতিউরনগর এলাকার মো. আক্তার হোসেন পার্শ্ববর্তী ভৈরব উপজেলার হাবিব সুপারমার্কেটে মোবাইল ফোনের ব্যবসা ও হজ এজেন্সির কাজ করেন। গত ১৬ জুন বিকেলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থেকে ফেরার পথে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউরনগর উত্তর পাড়া ব্রিজের ১০০ গজ দক্ষিণে পৌঁছলে একটি সাদা নোহা মাইক্রোবাসে তিন-চারজন সিভিলে এবং তিনজন পুলিশের পোশাক পরিহিত ব্যক্তি তার গতি রোধ করে।  

এ সময় প্রথমে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে তার সঙ্গে ল্যাপটপের ব্যাগে থাকা ২৫ লাখ ৮৫ হাজার টাকা মূল্যের বিদেশি মুদ্রা ও দুটি মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী আক্তার হোসেনের বড় ভাই দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে রায়পুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান ও গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আবুল বাশারের নেতৃত্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান বলেন, আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা রায়পুরা থানার পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত আছে বলে জানিয়েছে।



সাতদিনের সেরা