kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

চেয়ারম্যানের অফিসে কিশোরীকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

নেত্রকোনা সংবাদদাতা    

২৬ মে, ২০২২ ১৬:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চেয়ারম্যানের অফিসে কিশোরীকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার নগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান দেবেশ চন্দ্র তালুকদারের ব্যক্তিগত চেম্বারে এক কিশোরীকে (১৪) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত লিটন চন্দ্র সরকার (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  

জানা যায়, ওই কিশোরীর সঙ্গে মোবাইলে পরিচয় হয় লিটনের। তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে গত ৫ মে রাত ৮টার দিকে চেয়ারম্যানের ওই ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেন লিটন।

বিজ্ঞাপন

পরে বিষয়টি জানাজানি হলে থানায় মামলা করেন কিশোরীর বাবা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য পল্টু সামন্ত বলেন, 'চেয়ারম্যানের নির্দেশে ওই কিশোরীকে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছি। তবে রাতের ঘটনা সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। '

কিশোরীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, 'আমি অনেক ঘুরেও চেয়ারম্যানের কাছে বিচার না পেয়ে থানার আশ্রয় নিয়েছি। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। '

নগর ইউপি চেয়ারম্যান দেবেশ চন্দ্র তালুকদার বলেন, 'আমার অফিস আদমপুর। নয়াগাঁও বাজারের ঘরটি ব্যক্তিগত। এই ঘরের ওপরতলায় আমি বসি। নিচতলা সবার জন্য উন্মুক্ত। এখানে লিটন সরকার কিভাবে কিশোরীটিকে নিয়ে জঘন্য ঘটনা ঘটিয়েছে, তা আমার বোধগম্য নয়। ' সালিসের জন্য সময় ক্ষেপণের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, 'এ ধরনের ঘটনার বিচার তো আমার করা সম্ভব নয়। '

খালিয়াজুরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মজিবুর রহমান বলেন, অভিযুক্ত লিটন চন্দ্র সরকার মোবাইল করে মেয়েটিকে চেয়ারম্যান দেবেশ চন্দ্র সরকারের ঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন। চেয়ারম্যান এখানে থাকেন না। লিটন চন্দ্র সরকারকে গ্রেপ্তার শেষে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা