kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ইমরান

কুমিল্লা প্রতিনিধি   

২৬ মে, ২০২২ ১৬:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ইমরান

সংবাদ সম্মেলনে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন ইমরান।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচন থেকে অবশেষে সরে দাঁড়িয়েছেন আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী পারভেজ খান ইমরান। একই সঙ্গে নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতকে সমর্থন দিয়েছেন তিনি। ইমরান জানিয়েছেন, তিনি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই নির্বাচনী মাঠ ছেড়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) বেলা ৩টার দিকে কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্সের অডিটরিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ঘোষণার সাথে সাথে উপস্থিত ইমরানের নেতাকর্মীরা এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে না না বলে চিৎকার করেন। পরে তিনি উত্তেজিত নেতাকর্মীদের শান্ত করেন।

ইমরান কুমিল্লা বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে ঘনিষ্ঠ কর্মী প্রয়াত অধ্যক্ষ আফজল খানের ছেলে। কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ইমরান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য। সংবাদ সম্মেলন শেষে ইমরান রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে যান মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করার জন্য।

আরো পড়ুন : প্রধানমন্ত্রী নিজে না বললে মনোনয়ন তুলবেন না ইমরান

সংবাদ সম্মেলনে ইমরান বলেন, 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম। আমি নিজের ইচ্ছায় নির্বাচনে আসিনি। আমার নেতাকর্মীদের কারণে ও কুমিল্লার ২৭টি ওয়ার্ডের মানুষের দিকে চেয়ে নির্বাচনে এসেছি। তারা অতিষ্ঠ হয়ে এখন পরিবর্তন চায়। তাই নির্বাচনের জন্য আমার সকল প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু আমরা সবাই বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার রাজনীতি করি। আমরা তার নৌকার বিরুদ্ধে যেতে পারি না। নেত্রীর নির্দেশ অমান্য করার মতো সাহস আমার নেই। তাই নেত্রীর নির্দেশে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম। আমি আমার সকল নেতাকর্মীকে বলব আপনারা নৌকার পক্ষে কাজ শুরু করেন। আমিও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে নৌকা উপহার দিতে কাজ শুরু করছি। কারণ নৌকা কোন ব্যক্তির না, নৌকা আমাদের বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, নৌকা শেখ হাসিনার প্রতীক। '

ইমরান আরো বলেন, 'যারা নৌকা পেয়েছে তারা আমাদের কোনো নেতাকর্মীকে নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে রাখেনি। আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, তারা আমাকে ডাকুক বা না ডাকুক আমরা নৌকার পক্ষেই মাঠে আছি। '



সাতদিনের সেরা