kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

পদ্মা সেতু নিয়ে টিকটকে অপপ্রচার, তরুণ গ্রেপ্তার

শরীয়তপুর প্রতিনিধি    

২৫ মে, ২০২২ ১৪:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পদ্মা সেতু নিয়ে টিকটকে অপপ্রচার, তরুণ গ্রেপ্তার

পদ্মা সেতু নিয়ে টিকটকে অপপ্রচার করার অভিযোগে হেলাল উদ্দিন ঢালী (২৩) নামের এক তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার (২৪ মে) শরীয়তপুরের জাজিরা থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন থানার উপপরিদর্শক জসিম উদ্দিন। সন্ধ্যায় তাকে আদালতের মাধ্যমে শরীয়তপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

হেলাল উদ্দিন ঢালী পদ্মা সেতুর নদী শাসন প্রকল্পের স্থানীয় শ্রমিক।

বিজ্ঞাপন

ওই তরুণ জাজিরা উপজেলার বিকেনগর পূর্ব কাজীকান্দি গ্রামের সিরাজ ঢালীর ছেলে।

জাজিরা থানার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, জাজিরা উপজেলার বিকেনগর পূর্ব কাজীকান্দি গ্রামের সিরাজ ঢালীর ছেলে হেলাল উদ্দিন পদ্মা সেতুর নদী শাসন প্রকল্পের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিনোহাইড্রোতে শ্রমিকের কাজ করত। সেতুর নিরাপত্তায় নিয়োজিত শেখ রাসেল সেনানিবাসের সেনা সদস্যরা পশ্চিম নাওডোবা এলাকায় টহল দিচ্ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তারা দেখতে পান, সেতুর ৪২ নন্বর পিলারের কাছে হেলাল উদ্দিন টিকটক ভিডিও বানাচ্ছে। তখন সেনা সদস্যরা তাকে আটক করেন। তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন। ওই ফোনে পদ্মা সেতুর নানা নেতিবাচক প্রচারণর টিকটক ভিডিও পাওয়া যায়। সেনা সদস্যরা তখন তাকে জাজিরায় নিয়ে যান। সেখানে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা শেষে তাকে জাজিরা থানায় হস্তান্তর করা হয়।  

গতকাল মঙ্গলবার (২৪ মে) জাজিরা থানার উপপরিদর্শক জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে হেলালের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন। ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে শরীয়তপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজির করা হয়। কোর্টের বিচারক তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

জাজিরা থানার উপপরিদর্শক জসিম উদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, হেলাল উদ্দিন নামে পদ্মা সেতুর নদী শাসন প্রকল্পের এক শ্রমিক সেতু নিয়ে নানা ধরনের নেতিবাচক টিকটক ভিডিও বানাচ্ছিল। সে দীর্ঘদিন যাবৎ সেতুর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অপপ্রচারমূলক ভিডিও তৈরি করে আসছে। সেই ভিডিও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে বিভ্রান্তি ছড়ায়। প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে সে তা স্বীকার করেছে।



সাতদিনের সেরা