kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

যমুনার তীর রক্ষা বাঁধের পর এবার রিং বাঁধে ধস

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৪ মে, ২০২২ ১৬:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যমুনার তীর রক্ষা বাঁধের পর এবার রিং বাঁধে ধস

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় যমুনা নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ রক্ষায় নির্মিত রিং বাঁধের দুই জায়গায় ধস শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত উপজেলার পুখুরিয়া এলাকায় রিং বাঁধের দুই স্থানে প্রায় ৯৫ মিটার অংশ নদীগর্ভে ধসে গেছে। গত ২৪ ঘণ্টার যমুনা নদীর পানি স্থিতিশীল রয়েছে। এর আগে নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে প্রবল স্রোতে ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হয়ে তীর রক্ষা বাঁধ ভাঙনের সৃষ্টি হয়।

বিজ্ঞাপন

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধুনট উপজেলার পুখুরিয়া থেকে কাজিপুর উপজেলার ঢেকুরিয়া পর্যন্ত বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ রক্ষায় ২০১৯ সালে রিং বাঁধটি নির্মাণ করা হয়। বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের পূর্বপাশে নদীর পারে কাজের বিনিময় খাদ্য র্কসূচি (কাবিখা) প্রকল্পের আওতায় এক হাজার মিটার রিং বাঁধ নির্মিত হয়। গত বছরের বর্ষা মৌসুমে রিং বাঁধের পুখুরিয়া অংশে ফাটল ধরে। ওই সময় বাঁশের তৈরি পাইলিং করে জিও চট বিছিয়ে ও বালুর ভর্তি বস্তা দিয়ে টিকে রাখা হয় রিং বাঁধটি। কিন্ত কয়েক দিন ধরে পানির প্রবল তোড়ে পাইলিং করা অংশে ফের ধস দেখা দিয়েছে।       

এদিকে যমুনা নদীর অব্যাহত ভাঙনে ১৯ মে পুকুরিয়া-ভূতবাড়ি এলাকায় তীর রক্ষা বাঁধের প্রায় ১০০ মিটার এবং সোমবার সকাল ৫টার দিকে একই এলাকায় আরো ৮০ মিটার অংশ বিলীন হয়েছে। এনিয়ে একই স্থানে প্রায় ১৮০ মিটার অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙনের হুমকিতে পড়েছে আবাদি জমি, জনবসতি ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ। ঘরবাড়ি হারানোর ভয়ে আছেন নদী তীরবর্তী মানুষ।

বগুড়া জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপসহকারী প্রকৌশলী নিবারন চক্রবর্তী জানান, যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে প্রবল স্রোতে তীর রক্ষা বাঁধ এবং রিং বাঁধের কয়েক স্থানে ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত স্থান পরিদর্শন করা হয়েছে। দ্রুত মেরামত কাজ করা হবে।



সাতদিনের সেরা