kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

গঙ্গামতি সৈকত

জেলেদের জালে এলো ৪০ কেজির বিরল কচ্ছপ

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি    

২১ মে, ২০২২ ১৩:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জেলেদের জালে এলো ৪০ কেজির বিরল কচ্ছপ

পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটার গঙ্গামতি সৈকতের সানরাইজ পয়েন্টে জেলেদের জালে পেঁচানো অবস্থায়  ভেসে এসেছে বিরল গ্রিন সি টার্টল প্রজাতির (সামুদ্রিক সবুজ কচ্ছপ) ৪০ কেজি ওজনের জীবিত কচ্ছপ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Chelonio Mydos. 

আজ শনিবার সকাল ৮টার দিকে জোয়ার শেষে সৈকতে কচ্ছপটি বালুচরে আটকে পড়ে। খবর পেয়ে ব্লু গার্ড সদস্যরা জালে পেঁচানো অবস্থায় কচ্ছপটি জীবিত উদ্ধার করেন।

ব্লু গার্ড সদস্য পান্না মিয়া ও পনু হাওলাদার বলেন, মোটা সবুজ ও বড় ফাঁসের জালে এটি পেঁচানো ছিল।

বিজ্ঞাপন

এসব জাল সাধারণত গভীর সমুদ্রে ফিশিং ট্রলিতে ব্যবহার করা হয়। দীর্ঘক্ষণ জালে পেঁচানো থাকায় কচ্ছপটির পেটের নিচের অংশ, পাখা ও পায়ে কিছুটা ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কচ্ছপটি সাগরে অবমুক্ত করা হয়েছে।

ইউএসএ আইডির অর্থায়নে পরিচালিত আন্তর্জাতিক গবেষণাপ্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড ফিশের ইকোফিশ-২ প্রকল্পের সহযোগী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন, কলাপাড়ায় এবারই প্রথম জীবিত গ্রিন সি টার্টল ধরা পড়েছে। দুই দিন আগে রাবনাবাদ চ্যানেলে আরো একটি ৩৫ কেজি ওজনের ওই প্রজাতির মৃত কচ্ছপ ভেসে এসেছিল।

গবেষকরা আরো জানান, এ প্রজাতির কচ্ছপ এক শ বছর পর্যন্ত বাঁচে। ২৫ বছর বয়স থেকে প্রতি দু-চার বছর পরপর এ কচ্ছপ ডিম পাড়ে। এরা অন্য সামুদ্রিক কচ্ছপের চেয়ে বেশি সময় পানির নিচে থাকে। এদের খোলসে সবুজ বর্ণের অশ্রুবিন্দুর মতো ছোপ ছোপ দাগ থাকে এবং পাঁচ ফুট পর্যন্ত দৈর্ঘ্য এবং ৩০০ কেজি পর্যন্ত ওজনের হয়। গভীর সমুদ্রে অবাধে ফিশিং ট্রলার মাছ শিকার করায় ওই জালেই এ কচ্ছপ ধরা পড়ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এটি রক্ষায় এবং সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে সর্বস্তরের মানুষের সচেতন হওয়া খুবই জরুরি।



সাতদিনের সেরা