kalerkantho

রবিবার । ২৬ জুন ২০২২ । ১২ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৫ জিলকদ ১৪৪৩

জেলেদের চাল নিয়ে চেয়ারম্যানের চালবাজি

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

১৮ মে, ২০২২ ১৬:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জেলেদের চাল নিয়ে চেয়ারম্যানের চালবাজি

জেলেদের চাল নিয়ে 'চালবাজি'র অভিযোগে ইউনিয়ন পরিষদের দুটি ভবন সিলগালা করে দেওয়া হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। ছবি : কালের কণ্ঠ

চাঁদপুর সদরের কল্যাণপুর ইউনিয়নে জেলেদের জন্য বরাদ্দ চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদের দুটি ভবন সিলগালা করে দেয় উপজেলা প্রশাসন।

ঘটনার পরপরই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন রনি গাঢাকা দিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার সকাল থেকে কল্যাণপুর ইউনিয়নের ৬৬১ জন জেলের জন্য ৮০ কেজি হারে ভিজিএফের ৫৩ দশমিক ৬৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করার কথা ছিল।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু সংশ্লিষ্ট ট্যাগ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে চালের বস্তার সংখ্যায় গরমিল দেখতে পান। এর মধ্যে ৮২টি বস্তা না পেয়ে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানান। পরে সেখান থেকে ফিরে যান তিনি।

পরে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে ওই ইউনিয়ন পরিষদের দুটি ভবন সিলগালা করে দেন। তিনি জানান, চেয়ারম্যান কর্তৃক চাল আত্মসাতের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেবেন।

এরই মধ্যে ট্যাগ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন। এতে ইউপি চেয়ারম্যান শাখাওয়াত হোসেন রনিকে আসামি করা হয়।

অভিযোগের বিষয়ে চেয়ারম্যান রনির মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

এদিকে দিনভর চাল না পেয়ে উপস্থিত জেলেরা ফিরে যান। তারা এমন অনিয়মের বিচার চান। চাঁদপুর জেলা জেলে নেতা তসলিম বেপারী জানান, ঈদের পর চাল পাবে কল্যাণপুর ইউনিয়নের জেলেরা। কিন্তু এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেই চাল আত্মসাৎ করেছেন। অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের বিচার দাবি করেন তিনি।



সাতদিনের সেরা