kalerkantho

রবিবার । ২৬ জুন ২০২২ । ১২ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৫ জিলকদ ১৪৪৩

নিখোঁজ শিশুর লাশ মিলল জঙ্গলে

সাভার সংবাদদাতা   

১৭ মে, ২০২২ ১৬:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিখোঁজ শিশুর লাশ মিলল জঙ্গলে

আশুলিয়ার কলতাসুতি নয়াবাড়ি থেকে নিখোঁজের দুই দিন পর বাড়ির পাশের একটি জঙ্গল থেকে সামিয়া আক্তার নামের পাঁচ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে পুলিশ বলছে, এ ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত তা তদন্তে করে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে আশুলিয়ার কলতাসুতি নয়াবাড়ি এলাকার একটি জঙ্গল থেকে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে রবিবার বিকেল থেকে শিশুটি নিখোঁজ ছিল।

বিজ্ঞাপন

উদ্ধার শিশুর পরনে কিছু ছিল না। তার পরনের গেঞ্জি দিয়ে গলায় শ্বাসরোধ অবস্থায় ছিল।

নিহত শিশু সামিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ থানার ঝাটিয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল মতিনের মেয়ে। বর্তমানে তারা আশুলিয়ার কলতাসুতিতে আব্দুল মালেকের বাড়িতে ভাড়া থাকত।

পরিবার ও পুলিশ জানায়, শিশুটি কলতাসুতি নয়াবাড়ি এলাকায় রাজমিস্ত্রি বাবা ও পোশাক শ্রমিক মায়ের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকত। বাবা-মা কাজের প্রয়োজনে রবিবার (১৫ মে) বাড়ির বাইরে থাকার সময় ওই শিশুটি বিকেলের দিকে বাসার বাইরে খেলা করার সময় নিখোঁজ হয়। পরে এদিক-সেদিক খোঁজাখুঁজি করে শিশুটির সন্ধান পাওয়া না গেলে স্বজনরা গতকাল আশুলিয়া থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি দায়ের করে। পরে আজ সকালে স্থানীয়রা ওই শিশুটির ভাড়া বাসার অদূরে একটি ঝোপের মধ্যে মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, 'প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, শিশুটিকে শ্বাস রোধে হত্যা করে ঝোপরে মধ্যে লাশ ফেলে দিয়েছে। বাড়ির পার্শ্ববর্তী এলাকায় খালেকুজ্জামান নামের এক ব্যক্তির মালিকানাধীন ঝোপের মধ্যে শিশুর মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। হত্যাকারী লাশ গুম করতেই জঙ্গল ফেলেছে। এ ছাড়া প্রথমিকভাবে সুরহাতালে ধর্ষণের কোনো আলামত পাইনি। তবু আমরা পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছি। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। '



সাতদিনের সেরা