kalerkantho

রবিবার । ২৬ জুন ২০২২ । ১২ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৫ জিলকদ ১৪৪৩

শিশু নির্যাতন : রাজশাহীতে ইসলামিক বক্তা কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৭ মে, ২০২২ ১৫:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিশু নির্যাতন : রাজশাহীতে ইসলামিক বক্তা কারাগারে

রাজশাহীর পবার আল-জামি’আহ আস সালাফিয়া মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ইসলামিক বক্তা আব্দুর রহমানের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্র মতে, আব্দুর রহমান আলোচিত ইসলামিক বক্তা আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফের মেজো ছেলে। তার নাতির বিরুদ্ধে টাকা চুরির অভিযোগ করেছিল ওই মাদরাসার ১২ বছর বয়সী ছাত্র রামিম ইসলাম রিফাত।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু ভাতিজার (ভাইয়ের ছেলে) বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ আমলে না নিয়ে উল্টো রামিমকে পিটিয়ে আহত করেছিলেন আব্দুর রহমান। গত ১৬ মার্চ এ ঘটনা ঘটান তিনি। এরপর আহত ওই ছাত্রকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। এ ঘটনায় রামিমের বাবা বাদী হয়ে আব্দুর রহমানকে আসামি করে নগরীর শাহমখদুম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহাদত হোসেন জানান, ওই মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেলেও তার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে রাজশাহীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে পুনরায় জামিনের আবেদন করেন আব্দুর রহমান। তবে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার সূত্র মতে, গত ১৬ মার্চ ওই রাজশাহীর পবা উপজেলার ডাঙ্গীপাড়া এলাকার আল-জামি’আহ আস সালাফিয়া মাদরাসার দুই শিক্ষার্থীর টাকা হারিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় আব্দুর রহমানের ভাইয়ের ছেলে এবং ওই মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে টাকা চুরির অভিযোগ তোলে আরেক শিক্ষার্থী রামিম। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে রামিমকে পাইপ দিয়ে বেপরোয়া পেটাতে থাকেন আব্দুর রহমান। এতে বেশ কয়েকবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছিল রামিম। পরে পরিবারের সদস্যরা খবর পেয়ে রামিমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।



সাতদিনের সেরা