kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

টেকনাফে সন্ত্রাসীরা কেটে নিয়েছে পা, রক্তক্ষরণে মৃত্যু

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৬ মে, ২০২২ ০১:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টেকনাফে সন্ত্রাসীরা কেটে নিয়েছে পা, রক্তক্ষরণে মৃত্যু

কক্সবাজারের টেকনাফে শীর্ষ ইয়াবা কারবারি একরাম বাহিনীর হামলায় নুরুল হক ভুট্টো নামে এক ব্যক্তি পা কাটা পড়ে মারা গেছেন। তিনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাজির পাড়া এলাকার এজাহার মিয়ার ছেলে। পূর্ব শত্রুতার জেরে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা যায়। তবে নিহত ব্যক্তিও একাধিক মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামি এবং শীর্ষ ইয়াবা কারবারি হিসেবে এলাকায় পরিচিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

আজ রবিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে টেকনাফ সদর ইউনিয়নের মৌলভীপাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার সন্ধ্যায় নুরুল হক ভুট্টো উপজেলার সাবরাং এলাকা থেকে একটি সালিস শেষে বাড়ি ফেরার পথে মৌলভীপাড়া এলাকায় পৌঁছালে ওই এলাকার হাজী ফজল আহমদের ছেলে শীর্ষ ইয়াবা কারবারি মো. একরামের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাকে গতিরোধ করে অতর্কিতে হামলা চালায়।

এসময় সন্ত্রাসীরা তাকে দা, কিরিচ নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপাতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা ভুট্টোর ডান পা কেটে বিচ্ছিন্ন করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় ভুট্টো এবং তার দুই আত্মীয়কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।  

কক্সবাজার পৌঁছার আগে রাত ৮টার দিকে তিনি অ্যাম্বুল্যান্সেই মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভুট্টোর চাচাতো ভাই ও সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার এনামুল হক।

এ বিষয়ে সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার এনামুল হক জানান, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে গিয়ে মৌলভীপাড়ার একরাম বাহিনীর লোকজন একাধিকবার আমাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তারা আমাকে মারতে ব্যর্থ হয়ে জেঠাতো ভাই নুরুল হক ভুট্টোকে মেরে ফেলে।

প্রসঙ্গত, বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে সদর ইউনিয়নের নাজিরপাড়া ও মৌলভীপাড়া গ্রামে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে চরম দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। দুই পক্ষই উপজেলার শীর্ষ ইয়াবা কারবারি এবং সন্ত্রাসী বাহিনী হিসেবে প্রচার রয়েছে। ইউপি নির্বাচন পরবর্তী বিভিন্ন সময়ে দুই গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার সংঘাত সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। একরাম বাহিনী সুযোগ বুঝে পুরনো ঘটনায় প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে শেষ পর্যন্ত এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়েছে। পরে নুরুল হক ভুট্টো নামে এক ব্যক্তি মারা যাওয়ার খবর শুনেছি। দুই গ্রামে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং অপরাধীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।



সাতদিনের সেরা