kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

এ মৃত্যুর দায় কার?

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

১৫ মে, ২০২২ ১৭:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এ মৃত্যুর দায় কার?

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার কালাপানি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টিনের চালে উঠে বল আনতে গিয়ে বিদ্যুস্পৃষ্ট হয়ে নিরব ইসলাম (১০) নামে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। গত শনিবার বিকেলে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। নিরব বোনারপাড়া গ্রামের ভ্যানচালক জহুরুল ইসলামের ছেলে এবং ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় আজ রবিবার সাঘাটা থানায় মামলা দায়ের করেন নিরবের চাচা আব্দুর রাজ্জাক।

বিজ্ঞাপন

ঘটনার পর প্রধান শিক্ষক গা ঢাকা দিয়েছেন।

তবে ঘটনা সম্পর্কে স্থানীয়দের দুই ধরনের বক্তব্য পাওয়া গেছে।  

স্থানীয় বাসিন্দা আ. জোব্বার মিয়াসহ কয়েকজন অভিযোগ করেন, প্রধান শিক্ষক আব্দুল বাকী কিছুদিন ধরে স্কুলমাঠে শিক্ষার্থীদের খেলতে নিষেধ করে আসছিলেন। খেলা বন্ধ করতে স্কুলের পিয়ন নিলু মিয়া প্রধান শিক্ষকের নির্দেশে স্কুল ভবনের বারান্দার চাল ও মাঠের চারপাশে বিদ্যুতের সংযোগ দিয়ে রাখেন। টিনের চালের সেই বিদ্যুতের সংযোগের তারে জড়িয়েই নিরবের মৃত্যু হয়েছে।

তবে লুৎফর রহমান ও কাসেম উদ্দিন নামের অপর দুই স্থানীয় বাসিন্দা জানান, বারান্দার টিনের চালের নিচ দিয়ে স্কুল গেটের বৈদ্যুতিক বাল্বের তার নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেই তারের কয়েক জায়গায় বেশ কিছুদিন ধরেই লিক ছিল। যা দিয়ে টিন বিদ্যুতায়িত হয়। খেলতে গিয়ে বল টিনের চালে পড়লে সেই বল আনতে গিয়ে নিরব বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। মাসখানেক আগেও এক শিক্ষার্থী সেই কারণে বৈদ্যুতিক শক লেগে গুরুতর অসুস্থ হয়েছিল। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

নিহত নিরবের বাবা জহুরুল মিয়া বলেন, স্কুলের স্যারদের কারণেই আমার ছেলের মৃত্যু হয়েছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। এদিকে এ ঘটনার পর প্রধান শিক্ষক আব্দুল বাকীকে এলাকায় পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনও বন্ধ আছে।

সাঘাটা থানার ওসি মতিউর রহমান বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা