kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ১৭ মে ২০২২ । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩  

মেঝেতে পড়ে ছিল মনিকার লাশ, বাবার দাবি হত্যা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

১১ মে, ২০২২ ১৫:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেঝেতে পড়ে ছিল মনিকার লাশ, বাবার দাবি হত্যা

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পশ্চিম নাওডোবা ইউনিয়নে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত গৃহবধূ মনিকা ইসলাম (২০) ওই ইউনিয়নের ফকিরকান্দি গ্রামের মোস্তফা চৌকিদারের মেয়ে। এদিকে, মেয়ের মৃত্যুকে অস্বাভাকি দাবি করে তার স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ করেছেন মনিকার বাবা মোস্তফা চৌকিদার।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মনিকা আত্মহত্যা করেছে বলে শ্বশুরবাড়ি থেকে তার বাবাকে ফোন করে জানানো হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়ির মেঝেতে মনিকার নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্বজনরা। পরে পুলিশ এসে মনিকার মরদেহ উদ্ধার করে। ঘটনার পর বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে মনিকার স্বামী রিপন শেখসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

মনিকার বাবা মোস্তফা চৌকিদার বলেন, 'আমার মাইয়ারে বিয়া দেওনের পরতনি জামাই, জামাইয়ের মায়, বাহে, ভাগ্নি অনেক নির্যাতন করত। এর লাইগ্যা অনেকবার হ্যাগো লগে বৈঠক করছি। ওরা আমার মাইয়ারে মাইরা হালাইছে। প্রশাসনের কাছে আমি ওগো বিচার চাই। '

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিন্টু মণ্ডল কালের কণ্ঠকে বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ বলা যাবে। এ বিষয়ে প্রাথমিকভাবে থানায় একটি অপমৃত্যু রেকর্ড করা হয়েছে। তদন্ত করে ওই বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



সাতদিনের সেরা