kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ১৭ মে ২০২২ । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩  

কিস্তির টাকা নিয়ে ‘বকাবকি’, গায়ে কেরোসিন ঢেলে গৃহবধূর আত্মহত্যাচেষ্টা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

১৩ এপ্রিল, ২০২২ ১৯:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিস্তির টাকা নিয়ে ‘বকাবকি’, গায়ে কেরোসিন ঢেলে গৃহবধূর আত্মহত্যাচেষ্টা

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে গায়ে কেরোসিন ঢেলে শান্তা বেগম নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যার চেষ্টার করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আজ বুধবার নড়িয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়াডের ঢালীপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তার শরীরের ৫০ শতাংশের বেশি পুড়ে গেছে বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আহত গৃহবধূর মা নাসু বেগম ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি স্বামী ইব্রাহিম মাদবর কয়েকটি এনজিও থেকে ঋণ নেন। আজ বুধবার সকালে এনজিওকর্মীরা কিস্তির টাকা আদায়ের জন্য ইব্রাহিম মাদবরের বাড়িতে যান। এ সময় ইব্রাহিম মাদবর বাড়িতে ছিলেন না। তারা কিস্তির টাকা না পেয়ে স্ত্রী শান্তা বেগমেকে মানসিক চাপ প্রয়োগ করেন। কিছুক্ষণ পরে স্বামী ইব্রাহিম মাদবর বাড়িতে এলে দুজনের মধ্যে কিস্তির টাকা নিয়ে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে স্ত্রী অপমান সইতে না পেরে নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন।

আহত শান্তা বেগমের বাবা দুলাল সৈয়াল বলেন, 'কিস্তির টাকা নিয়ে আমার মেয়ে শান্তা বেগম ও মেয়ের জামাই ইব্রাহিম মাদবরের সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া হতো। আজ দুপুরে কিস্তির টাকার জন্য লোকজন বাড়িতে এসে বকাবকি করে যায়। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। অপমান সইতে না পেরে আমার মেয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। ' 

এ নিয়ে মন্তব্য জানতে ওই এনজিওর কার্যালয়ে যোগাযোগ করে কাউকে পাওয়া যায়নি। শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. আবু বকর সিদ্দিক বলেন, 'আমাদের হাসপাতালে নড়িয়া থেকে শান্তা বেগম নামে একজন আগুনে পোড়া রোগী আসে। আমরা তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ঢাকায় পাঠিয়ে দিই। '

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, ‘খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। ’



সাতদিনের সেরা