kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

সবার এলো, শুধু ৭২ জনের এলো না; কেন?

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১৪ মার্চ, ২০২২ ২১:৫১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সবার এলো, শুধু ৭২ জনের এলো না; কেন?

কোনো কারণ ছাড়াই ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ ও নান্দাইল উপজেলার সোনালী ব্যাংক শাখায় ৭২ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার গত ফেব্রুয়ারি মাসের সম্মানী ভাতা আসেনি। এ অবস্থায় ওই সব বীর মুক্তিযোদ্ধার মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে গিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন।

তাঁদের মধ্যে নান্দাইল উপজেলার ৬৭ জন ও ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার পাঁচজন।

বিজ্ঞাপন

  

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বছরখানেক আগে সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ছাড় করা হতো। বর্তমানে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যে পদ্ধতিতে বেতন-ভাতা ব্যাংক হিসাবে হস্তান্তর করা হয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতাও সেভাবে দেওয়া হয়।

সোনালী ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট শাখাগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভাতার অর্থ লেনদেন করার জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামে ব্যাংক হিসাব খোলা রয়েছে। ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) পদ্ধতিতে প্রতি মাসের নির্দিষ্ট তারিখে সম্মানী ভাতা প্রত্যেকের ব্যাংক হিসাবে জমা হয়ে থাকে। মুঠোফোনে বার্তার মাধ্যমে হিসাবধারী ভাতার অর্থ জমা হওয়ার তথ্য পেয়ে থাকেন।

আজ সোমবার বেশ কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন, তাঁদের নামে ভাতার অর্থ জমা হয়নি। আবার কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ভাতার অর্থ উত্তোলন করেছেন। এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।

সোনালী বাংক লিমিটেড নান্দাইল শাখার ব্যবস্থাপক মো. জহিরুল হক বলেন, তাঁর শাখায় ২৪০-এর মধ্যে ৬৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার ব্যাংক হিসাবে গত ফেব্রুয়ারি মাসের সম্মানী ভাতা জমা হয়নি। অর্থ জমা না হওয়ার বিষয়ে তিনি কোনো চিঠিও পাননি। একই ব্যাংকের ঈশ্বরগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক আবু রায়হান বলেন, তাঁর শাখায় ১৭৮ জনের মধ্যে পাঁচজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতার অর্থ আসেনি। কেন আসেনি এ বিষয়ে কোনো চিঠি দেওয়া হয়নি।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সূত্র জানিয়েছে, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সমন্বিত তালিকা প্রণয়ন করেছে। সেই তালিকায় যাঁদের নাম রয়েছে তাঁদের ব্যাংক হিসাবে সম্মানী ভাতার অর্থ পাঠানো হয়েছে।  

নান্দাইলের একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক মো. আবদুল মান্নান জানান, তিনি জানুয়ারি মাসের ভাতা পেয়েছেন। ফেব্রুয়ারি মাসের সম্মানী ভাতা তাঁর ব্যাংক হিসাবে জমা হয়নি। প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছেন সমন্বিত তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তকরণ কাজ সম্পন্ন হলে সকলেই ভাতার অর্থ পেয়ে যাবেন।

নান্দাইল মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মাজহরুল হক ফকির বলেন, 'বিষয়টি আমি জেনেছি। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেব। ' তবে অন্য একটি একটি সূত্র জানায়, যাঁদের নামে ভাতা আসেনি তাঁরা শুধু গেজেটভুক্ত আছেন। ওই গেজেট জামুকা অনুমোদন দেয়নি। এ অবস্থায় তাঁদের নাম স্ব স্ব উপজেলায় যাচাই-বাছাইয়ের জন্য পাঠালেও ওই যাচাই-বাছাইয়ের প্রতিবেদনে জামুকা সন্তুষ্ট নয়।



সাতদিনের সেরা