kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

'ঘেরবাড়ি লুট করিনি, মাস্তান পুষিনি'

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১২ মার্চ, ২০২২ ১৯:৩৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'ঘেরবাড়ি লুট করিনি, মাস্তান পুষিনি'

'রাজনৈতিক জীবনে কোনো দিন ঘেরবাড়ি লুট করিনি, কোনো দিন মাস্তান পুষিনি। ’ এই দিন দিন নয়, সামনে আরো দিন আছে। দলের যারা ক্ষতি করেছেন তাদের বয়কট করবেন। এমন মন্তব্য করেছেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মোংলা-রামপাল আসনের সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার আব্দুল খালেক।

বিজ্ঞাপন

 

শনিবার (১২ মার্চ) বেলা ১১টায় মোংলায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন। তবে এ মন্তব্য ঘিরে শুরু হয়েছে নতুন জল্পনার। দলের স্থানীয় বিদ্রোহী নাকি প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের নেতাদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেছেন তা নিয়ে নতুন রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর তিনি মোংলায় এলেন। প্রিয় নেতাকে কাছে পেয়ে উচ্ছ্বসিত নেতাকর্মীরা। পরে নেতাকর্মীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় শেষে কর্মিসভায় যোগ দেন তিনি।

মোংলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনিল কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, 'অসুস্থতার কারণে দীর্ঘ এক বছর আপনাদের সময় দিতে পারিনি। এখন সুস্থ হয়ে আপনাদের মাঝে এসেছি। নতুন করে কার্যক্রম শুরু করতে হবে। ২০২৩ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে দলীয় সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের শক্তিশালী করতে হবে। কারণ প্রতিপক্ষ জামায়াত-বিএনপিসহ অন্যান্য কিছু দল গোপনে এক হয়ে গেছে। তারা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত করছে। '

এ সময় দলের স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, '১৯৯১ সাল থেকে এ পর্যন্ত মোংলা-রামপাল আসন আওয়ামী লীগের দখলে। এই আসন ধরে রাখতে দলের মধ্যে দ্বিধাদ্বন্দ্ব রাখবেন না, সবাই এক হয়ে কাজ করবেন। কোনো নেতাকে আমি একা বানাইনি, তৃণমূলের মতামত নিয়ে নেতা বানিয়েছি। রাজনৈতিক জীবনে কোনো দিন ঘেরবাড়ি লুট করিনি, কোনো দিন মাস্তান পুষিনি। এখন অনেক কথা শুনি। সামনে এসে কথা বলার সাহস হয়নি কোনো দিন, এখন সেসব লোক এসব কথা বলেন। বেশি বারাবাড়ি ভালো না, অনেক বেড়েছেন, এখন থেমে যান। ' দলের যে ক্ষতি করতে চান (!), 'এই দিন
দিন নয় সামনে আরো দিন আছে' বলেও হুঁশিয়ারি দেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি। বিগত দিনে যারা দলের সাথে বেঈমানি করেছেন তাদের সাথে কোনো আপস হবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় আরো বক্তব্য দেন স্থানীয় সাংসদ ও বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী খুলনা সিটি মেয়র খালেকপত্নী বেগম হাবিবুন নাহার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইব্রাহিম হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ নেতাকর্মীরা।



সাতদিনের সেরা