kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ২৪ মে ২০২২ । ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২২ শাওয়াল ১৪৪৩  

জীবনে নতুন পথচলা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

২৯ জানুয়ারি, ২০২২ ১৬:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জীবনে নতুন পথচলা

ভিক্ষে নয় কর্মের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবন চায় কুড়িগ্রামের তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। করোনাকালে অসহায় জীবন যাপন করা এসব মানুষ চায় সামাজিক মর্যাদা ও কর্মক্ষেত্রে স্বাভাবিক জীবন। এই পরিস্থিতিতে তাদেরকে কর্মমূখী পরিবেশে সম্পৃক্ত করতে নেওয়া হয়েছে উদ্যোগ।

স্থানীয় বেসরকারি সংগঠন এএফএডি (অ্যাসোসিয়েশন ফর অল্টারনেটিভ ডেভেলপমেন্ট) তৃতীয় লিঙ্গের এসব মানুষকে ব্যবসায় যুক্ত করতে উপকরণসহ দোকানঘর তৈরি করে দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আর পণ্য বিক্রির মাধ্যমে শুরু হয়েছে তাদের নতুন কর্মক্ষেত্র। জীবনে নতুন পথচলা।

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) সকালে তৃতীয় লিঙ্গ জনগোষ্ঠীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিলুফা সুলতানা, ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা ও সিনিয়র সহকারি কমিশনার গোলাম ফেরদৌস, সদর ইউএনও রাসেদুল হাসান, এএফএডি’র প্রধান নির্বাহী সাঈদা ইয়াসমিন রুপা, তৃতীয় লিঙ্গ উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মো. আবু আজাদ রানা প্রমুখ।

কুড়িগ্রাম জেলায় প্রায় শতাধিক তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী রয়েছে। এদের মধ্যে ২০ থেকে ২৫ জন বসবাস করে শহরের ধরলা ব্রিজ সংলগ্ন উত্তর মরাকাটা ওয়াপদা বাঁধে। করোনাকালে তাদের উপার্জন থমকে গেছে। প্রকাশ্যে মানুষের কাছে হাত পেতে অর্থ চাইতে গেলেই লোকজন ভয়ে সটকে পরে। এমন পরিস্থিতিতে এই জনগোষ্ঠীকে আয়মূলক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে তাদের সঙ্গে আলোচনা করে কাপড়ের ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ ও দোকানঘর নির্মাণ করে দেয় স্থানীয় বেসরকারি সংগঠন এসোসিয়েশন ফর অল্টারনেটিভ ডেভেলপমেন্ট।

দোকানঘর ও উপকরণ পেয়ে খুশি তৃতীয় লিঙ্গ উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মো. আবু আজাদ রানা জানান, আমরা ভীষণ সম্মানিত বোধ করছি। আমরা মানুষের কাছে ভিক্ষে নয় সম্মানজনক কাজ চাই। কাজের মাধ্যমে সম্মান নিয়ে বাঁচতে চাই। এ ছাড়াও পরিবার থেকে বিচ্ছিন্নদেরকে নিয়ে আমরা কোনভাবে আশ্রয় নিয়ে আছি। আমাদের জন্য বাসস্থান করে দিলে খুবই ভালো হয়।

স্থানীয় বেসরকারি সংগঠন এএফএডি’র প্রধান নির্বাহী সাঈদা ইয়াসমিন রুপা জানান, জার্মানভিত্তিক মাল্টিজার ইন্টারন্যাশনাল’র বাংলাদেশ চ্যাপ্টরের প্রোগ্রাম ম্যানেজার ও রিজিওনাল প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর মারেন পিচ কুড়িগ্রামে কাজ করতে এসে তৃতীয় লিঙ্গ সম্প্রদায়ের সঙ্গে কথা বলে তাদের জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে কিছু করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। তারই আগ্রহে আমার সংগঠনের সহকর্মী ও দেশীয় এনজিও’র বন্ধুদের টোকেন ডোনেশন দিয়ে এই তহবিল সংগ্রহ করে দোকানঘর ও উপকরণ কিনে দেওয়া হয়। এতে সামাজিকভাবে দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন হবে। তাদেরর জীবন-জীবিকা পরিবর্তন করে তারা যেন কর্মক্ষম হতে পারে এজন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম প্রতিষ্ঠানটি উদ্বোধন করতে এসে বলেন, বেসরকারি সংগঠন এএফএডি তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে। এরা যদি ব্যবসা ভালোভাবে পরিচালিত করতে পারে তাহলে তাদের স্থায়ী বাসস্থানের ব্যবস্থাসহ কর্মসংস্থানে সহযোগিতা করা হবে।



সাতদিনের সেরা