kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ২৪ মে ২০২২ । ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২২ শাওয়াল ১৪৪৩  

তাড়াশে ৮ মাস ধরে বেতন হচ্ছে না ১৯৮ কমিউনিটি স্বাস্থ্যকর্মীর

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৯ জানুয়ারি, ২০২২ ১৪:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তাড়াশে ৮ মাস ধরে বেতন হচ্ছে না ১৯৮ কমিউনিটি স্বাস্থ্যকর্মীর

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ৮ মাস যাবত বেতন/সম্মানী ভাতা পাচ্ছেন না ২৪টি কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত ১৯৮ জন মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ার (এমএইচভি)। ফলে মাঠ পর্যায়ে কাজ করা ওই হেলথ ভলান্টিয়াররা বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ৩১ মার্চে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কমিউনিটি বেইজড হেলথ কেয়ার (সিবিএইচসি) এর আওতায় দেশের ২৭ জেলার মধ্যে সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ২৪টি কমিউনিটি ক্লিনিকে ১৯৮ জন মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ার (এমএইচভি) নিয়োগ করা হয়। তারা মাসিক ৩ হাজার ৬০০ টাকা সন্মানী ভাতার পাশাপাশি নিজ নিজ এলাকায় বিভিন্ন ধরনের টিকা ও ভিটামিন ক্যাম্পেইনে অতিরিক্ত কিছু ভাতা পেয়ে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ারা মূলত গ্রামীণ জনগণের নিকট মানসম্পন্ন প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেন। প্রতিটি পরিবারের জন্য গর্ভবতী মা, রোগের তালিকা, খানার সংখ্যা, পরিবারে আয়ের পরিমাণ ও সদস্য সংখ্যার তথ্য সংগ্রহ করাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যশিক্ষার পাশাপাশি সচেতনতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সক্রিয় ভূমিকা পালন করাই তাদের কাজ। আর সে লক্ষ্যেই তাড়াশ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে অবস্থিত ২৪টি কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত ১৯৮ জন এমএইচভি ২০২০ সাল থেকে কাজ করছেন।

উপজেলার তালম ইউনিয়নের উপরসিলেট কমিউনিটি ক্লিনিকের আওতায় কর্মরত হেলথ ভলান্টিয়ার হাদিউল ইসলাম জানান, এমএইচভিকর্মীরা করোনাকালীন প্রতিটি ওয়ার্ডে ২৫০ থেকে ৩০০ পরিবারের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন তথ্য অ্যাপসের মাধ্যমে আপলোড করে থাকেন। এ ছাড়াও তারা সপ্তাহে দুই দিন করে সিসিতে ডিউটি, মাসে একদিন সাব ব্লকে ইপিআই ডিউটি করেন। বর্তমানে করোনা টিকা প্রদানের কাজও তারা সহযোগিতা করছেন। কিন্তু দীর্ঘ আট মাস যাবত তারা তাদের কোনো সন্মানী ভাতা ও অতিরিক্ত কাজের পারিশ্রমিক দেওয়া হচ্ছে না। এতে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ২৪টি কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত ১৯৮ জন মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ার বর্তমানে করুণ অবস্থায় রয়েছেন।  

এদিকে, বাংলাদেশ সিএইচসিপি অ্যাসোসিয়েশন তাড়াশ উপজেলা শাখার সভাপতি ও কাউরাইল কমিউনিটি ক্লিনিকের হেল্থ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) শাহীনুর রহমান দাবি করেন, প্রতিটি ক্লিনিকে মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়াররা নিরলসভাবে এই করোনার সময়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খানা জরিপ, করোনা ভ্যাকসিনে সহযোগিতাসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছেন। তাই তাদের যে সামান্য ভাতা দেওয়া হয়, তা প্রতিমাসে নিয়মিতভাবে দেওয়া ও সম্মানীভাতার পরিমাণ বৃদ্ধি করা হোক।   

এ প্রসঙ্গে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. মনোয়ার হাসান বলেন, ১৯৮ জন মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়াদের সম্মানী ভাতা এখনও আসেনি। আসলে দ্রুতই দেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা