kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

বাজার থেকে হারিয়ে গেল ছোটভাই, কলাবাগানে মিলল লাশ

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ১৩:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাজার থেকে হারিয়ে গেল ছোটভাই, কলাবাগানে মিলল লাশ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে কলাবাগান থেকে মারুফ হোসেন (১৪) এক মাদরাসাছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের সরাবড়ি এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম সরকার।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, মারুফ পার্শ্ববর্তী সখিপুর উপজেলার কাকরাজান ইউনিয়নের গড়বাড়ি গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

সে কালিহাতী উপজেলার রৌহা হাফিজিয়া মাদরাসায় লেখাপড়া করতো। তার নানার বাড়ি ঘাটাইল উপজেলার দেওপাড়া গ্রামে।

মাদরাসা বন্ধ থাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মারুফ তার বড়ভাই অটোচালক বাবর আলীর সঙ্গে অটোরিকশাযোগে ঘাটাইলের দেওপাড়া গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে যান। দেওপাড়া বাজার থেকে দুই ভাই মিলে কলা কেনেন। ছোটভাইকে অটোরিকশায় রেখে বড়ভাই বাবর আলী কলা মামাবাড়িতে রেখে আসতে যান। কলা রেখে বাজারে ফিরে বাবর আলী অটোরিকশা ও তার ভাইকে দেখতে না পেয়ে বাজারেই অপেক্ষা করতে থাকেন। বাবর আলী ভাবেন, মারুফ হয়তো অটোরিকশাটি নিয়ে কোথাও ঘুরে আসতে গেছে। দীর্ঘসময়ে মারুফ ফিরে না আসায় গভীর রাত পর্যন্ত খোঁজাখুঁজি করেন বড়ভাই।

রসুলপুর ইউপি সদস্য নূরুল ইসলাম জানান, আজ শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা উপজেলার সরাবাড়িতে একটি অজ্ঞাত শিশুর লাশ কলাবাগানের ভেতরে গলায় চাদর পেঁচানো অবস্থায় দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে মারুফের বড় ভাই বাবর আলী ঘটনাস্থলে গিয়ে  লাশটি শনাক্ত করেন।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজহারুল ইসলাম সরকার জানান, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অটোরিকশা ছিনতাই করার উদ্দেশ্যেই তাকে হত্যা করা হয়েছে। লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন। রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।  



সাতদিনের সেরা