kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

কেরানীগঞ্জে ৩২ লাখ টাকার মালামালসহ চোর চক্রের তিন সদস্য গ্রেপ্তার

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০২:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কেরানীগঞ্জে ৩২ লাখ টাকার মালামালসহ চোর চক্রের তিন সদস্য গ্রেপ্তার

ঢাকার কেরানীগঞ্জে ২০২টি এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডারসহ ট্রাক চুরির ঘটনায় মালামালসহ চোর চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুরে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় কেরানীগঞ্জ সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান কেরানীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহাবুদ্দীন কবীর।

সংবাদ সম্মেলনে শাহাবুদ্দীন কবীর জানান, গত ১৭ জানুয়ারি মধ্যরাতে কেরানীগঞ্জ থানাধীন রুহিতপুর বাজারে হাজী মো. বদিউল আলমের (৫৩), আলম এন্টারপ্রাইজ নামে এলপিজি গ্যাসের অফিস এবং গোডাউনের সামনে থেকে (ঢাকা মেট্রো ন-১৫-৪৯৭৪) এবং উক্ত ট্রাকে থাকা ২০২ (দুইশত দুই)টি এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডারসহ চুরি করে নিয়ে যায়। যার বাজারে মূল্য গাড়িসহ ১৯ লাখ ৭১ হাজার ৪০০ টাকা।

বিজ্ঞাপন

 

এই বিষয়ে বদিউল আলম পর দিন ১৮ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্তভার এসআই এম ইমরান হোসাইনকে দেওয়া হয়।

এরপর এসআই এম ইমরান হোসাইন, পুলিশ সুপার ঢাকা মো. মারুফ হোসেন সরদার, বিপিএম, পিপিএম মহোদয় ও কেরানীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহাবুদ্দীন কবীর বিপিএম তত্ত্বাবধানে, কেরানীগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আৰু ছালাম মিয়া, পিপিএম এর দিক নির্দেশনা ও সার্বিক সহযোগিতায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে উক্ত চুরির ঘটনায় জড়িত আসামিদের শনাক্ত করা হয়। এরপর তাদের সম্ভাব্য অবস্থান নির্ণয়পূর্বক একাধিক সোর্সের সহযোগিতায় ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় টানা তিন দিন অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে আন্তঃজেলা চোর চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন- বুদ্ধিশ্বর বিশ্বাস (৫২), মো. জাহিদ মিয়া (৩৭) ও চাঁন মিয়া বেপারী (৫০)।

এসময় তাদের হেফাজত হতে অত্র মামলার ঘটনায় চুরি যাওয়া ট্রাক ও ট্রাকে থাকা ২১ (একুশ)টি এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডার এবং চোরাইকৃত মালামাল অন্যত্র স্থানান্তরের কাজে ব্যবহৃত অপর আরেকটি ট্রাক এবং ট্রাকে থাকা চুরি যাওয়া ১৮১ (একশত একাশি)টি এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডার উদ্ধার করা হয়। এছাড়া চুরির কাজে ব্যবহৃত অপর আরেকটি ট্রাক উদ্ধার করা হয়, যাহার মূল্য আনুমানিক ১২ লাখ টাকা।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্য আসানিদের শনাক্তসহ গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু ছালাম মিয়া।



সাতদিনের সেরা