kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

পঞ্চগড়ে কবর থেকে ১৩ কঙ্কাল 'উধাও', এলাকাজুড়ে চাঞ্চল্য

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

২৫ জানুয়ারি, ২০২২ ১৮:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চগড়ে কবর থেকে ১৩ কঙ্কাল 'উধাও', এলাকাজুড়ে চাঞ্চল্য

পঞ্চগড়ে বোদা উপজেলার একটি কবরস্থান থেকে ১৩টি কঙ্কাল চুরির অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার চন্দনবাড়ি ইউনিয়নের বটতলী দলুয়াদিঘী কবরস্থানে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা ওই এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সকালে কবরস্থানের পাশে ছাগল বাধতে গিয়ে এক তরুণ কয়েকটি কবরের মাটি এলোমেলো ও কিছুটা খনন করা দেখতে পায়।

বিজ্ঞাপন

পরে সে বিষয়টি স্থানীয়দের জানালে তারা গিয়ে দেখতে পান ১৩টি কবরে ওপর একই অবস্থা। একটি কবরে কেবল দাফনের কাপড় পড়ে রয়েছে। গত দুই বছরের মধ্যে এই সব কবরগুলোতে মৃতদের সমাহিত করা হয়েছিল। বিষয়টি জানাজানি হলে কবরস্থানে ভিড় বাড়তে থাকে। খবর পেয়ে বোদা থানার ওসি আবু সাঈদ চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোলেমান আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

চন্দনবাড়ি এলাকার মোকসেদ আলী বলেন, এই কবরস্থানে আবার ভাইয়ের দাফন করা হয়েছিল। কঙ্কাল চুরির খবর পেয়ে আমি ছুটে যাই। গিয়ে দেখি আমার ভাইয়ের কবরটির মাটিও খনন করা। পরে আমরা কবরে মাটি আরেকটু সরিয়ে দেখি কেবল দাফনের কাপড় রয়েছে আর কিছু নেই। এখন আমরা সবাই বিষয়টি নিয়ে আতঙ্কিত।

চন্দনবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম প্রধান বলেন, যাদের কবরের কঙ্কাল চুরি হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে তাদের স্বজনদের অভিযোগ পেলে কবরগুলো পুনঃখনন করে দেখা যেত। কিন্তু এখনো কোনো অভিযোগ করেনি। আমরা এলাকার সবাই এই বিষয়ে সজাগ থাকতে বলেছি।

বোদা থানার ওসি আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, স্থানীয়রা ধারণা করছেন ওই কবরস্থান থেকে ১৩টি কঙ্কাল চুরি হয়েছে। আমরা তাদের দেওয়া তথ্য যাচাই করে দেখছি। পরে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বোদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোলেমান আলী বলেন, কবরগুলো খুঁড়ে ভালোভাবে দেখলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যেত। স্থানীয়রা চাইলে আদালতের অনুমতি নিয়ে কবরগুলো খুঁড়ে দেখা যেতে পারে। আমরা প্রত্যেক এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের এ বিষয়টি জানিয়েছি। অন্য কোথাও এমন ঘটনা ঘটেছে কিনা তা খোঁজ নেওয়ার জন্য বলেছি।  



সাতদিনের সেরা