kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

'আমি যদি ভোট না পাই, কসম খেয়ে বলছি...'

দিনাজপুর প্রতিনিধি    

২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ২১:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'আমি যদি ভোট না পাই, কসম খেয়ে বলছি...'

ঘুম থেকে উঠে উঠান ঝাড়ু দিতে যান বিউটি রায়। এ সময় তিনি দেখতে পান বাড়ির দেয়ালে, সামনের গাছে, মন্দিরে পোস্টার লাগানো। এগিয়ে গিয়ে পোস্টারের লেখা দেখে ভয় পেয়ে যান তিনি। পরে স্থানীয়দের জানান।

বিজ্ঞাপন

ওই পোস্টারে ভোট না দিলে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে ভোটের পর ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে কোন প্রতীক বা প্রার্থীকে ভোট দিতে হবে সে সম্পর্কে কিছু লেখা নেই। এ ঘটনার পর থেকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে পুরো এলাকায়।

দিনাজপুর সদর উপজেলার ১ নম্বর চেহেলগাজী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চারটি পাড়ান মন্দির, বাড়ির দেয়ালে এবং গাছে এই পোস্টার সাঁটানো হয়েছে। রবিবার (২৩ জানুয়ারি) দিবাগত রাতের কোনো এক সময় ওয়ার্ডের বানপাড়া, মালিয়াপাড়া, নদীপাড়া ও আদিবাসীপাড়া এলাকা এই পোস্টার সাঁটায় অজ্ঞাতরা। তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনো খুঁজে বের করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয়দের ধারণা, আগামী ৩১ জানুয়ারির ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো পক্ষ এমন আতঙ্ক ছড়িয়েছে। তবে পুলিশ ও প্রশাসন সবাইকে নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছে।

বাড়ির সামনে গাছে লাগানো পোস্টার।

বিভিন্ন জায়গায় লাগানো পোস্টারে লেখা রয়েছে, 'হিন্দু পলিয়া বেটারা ও আদিবাসি বেটারা এবং যালিয়া বেটারা আমি যদি ভোট না পাই খোদার কসম খেয়ে বলছি ভোটের পরে সব বেটাদের ব্যবস্থা করবই। '

এ ঘটনায় সোমবার বিকেল ৩টায় ওই চার গ্রামে বৈঠক করেছে উপজেলা প্রশাসন। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মর্তুজা আল মঈদ এবং কোতোয়ালি থানার ওসি মোজাফফর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় ভোটার বিউটি রায় বলেন, 'সকালে উঠান ঝাড়ু দেওয়ার সময় লিফলেটটি দেখতে পাই। লিফলেটে আমাদেরকে নানাভাবে হুমকি দেওয়া হয়েছে। সামনে আবার ভোট। এখন কী করব। মনে হচ্ছে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাই। কে যে হুমকি দিল, কিছুই তো বুঝতেছি না। এভাবে চলতে থাকলে আমরা ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে যেতে পারব না। ' 

ওই ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী মেম্বার প্রার্থী স্বপ্ন রানী বলেন, 'এই ওয়ার্ডের ভোটারদের আতঙ্কিত করতেই এই কাজ করেছে। যে করেছে সে নিকৃষ্টমানের মানুষ। ' 

১ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সেমাজ উদ্দীন বলেন, 'লিফলেটের ফলে এই এলাকায় আতঙ্ক দেখা গিয়েছে। এই কাজের সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। ' 

স্থানীয়দের সঙ্গে বৈঠক করে প্রশাসন।

ওয়ার্ড মেম্বার মোকছেদ আলী বলেন, 'সকালে খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসেছি। এসেই ঘটনার সত্যতা পাই। বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। '

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম মওলা বলেন, 'ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছি। এ ব্যাপারে আমাদের তদন্তকাজ চলমান রয়েছে। স্থানীয়দের আশ্বস্ত করেছি যে, আপনারা নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে যাবেন এবং পছন্দমতো প্রার্থীকে ভোট দেবেন। পুলিশ আপনাদের পাশে থাকবে। '

ইউএনও মর্তুজা আল মঈদ বলেন, 'আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, সবাইকে শান্ত  থাকতে বলেছি। তদন্ত শুরু করেছি। আশা করি দ্রুতই জড়িতদের খুঁজে বের করতে পারব। তবে কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। '

কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মোজাফফর হোসেন বলেন, 'এখনো কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ করেননি। আমরা আমাদের মতো তদন্ত করছি। নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। '



সাতদিনের সেরা