kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১৫ কিলোমিটার যানজট

কুমিল্লা প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০২২ ২০:৫৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১৫ কিলোমিটার যানজট

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে অন্তত ১৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। জেলার বুড়িচং উপজেলার নিমসার থেকে চান্দিনা পর্যন্ত এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে যাত্রীরা জানিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ময়নামতি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর বলেছেন, মহাসড়কের একাংশ বন্ধ করে বৃহস্পতিবার বিকেলে যান চলাচলের মোক্ষম সময়ে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তর রাস্তার মেরামত কাজ করার কারণে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তবে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর বলছে, মহাসড়কের নিমসারে দুর্ঘটনা এবং সড়ক মেরামতের কারণে মানুষকে কিছুটা ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

যানজটের কারণে দুর্ভোগে পড়া যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই এলাকায় মহাসড়কের চট্টগ্রামমুখী লেন বন্ধ রেখে মেরামত কাজ পরিচালিত হচ্ছে। যার কারণে ঢাকামুখী লেন দিয়ে দুই দিকের গাড়ি চলাচল করছে। এতে সড়ক সংকুচিত হয়ে এসেছে। এ ছাড়া যানবাহনের চাপ বেশি থাকায় অনেক গাড়ি আটকা পড়েছে।

এদিকে, মহাসড়কের নিমসারে উল্টোপথে সড়ক বিভাজকের ওপর একটি ট্রাক উঠে সেখানে আটকা পড়ে। একই এলাকায় একলেন দিয়ে চলাচলের কারণে লরি ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে কেউ নিহত হয়নি। মেরামতের কারণে রাস্তা বন্ধ ও সড়কে দুর্ঘটনা, এই দুটি কারণেই যানজট ব্যাপক আকার ধারণ করেছে।

কুমিল্লা থেকে ঢাকায় যাওয়ার জন্য বৃহস্পতিবার দুপুরে রওনা দেন আবুল কালাম নামে এক ব্যক্তি। তিনি জানান, নিমসার ও চান্দিনা এলাকায় দুই ঘণ্টার বেশি যানজটে আটকা পড়েছেন তিনি। এতে তিনিসহ বাসের যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে।  

একটি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা দিতে কুমিল্লা থেকে ঢাকায় যাত্রা করা তৈয়বুর রহমান জানান, বিকেল ৩টায় কুমিল্লা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে বাসে যাত্রা করেছি। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চান্দিনায় আটকে ছিলাম। সড়কে দীর্ঘ যানজট এবং গাড়ির চাপ অনেক বেশি।

ঢাকা থেকে কুমিল্লার উদ্দেশ্যে রওনা করা আমান উল্লা আমান বলেন, বিকেল ৫টায় চান্দিনা এসে যানজটে আটকা পড়েছি। এক লেন দিয়ে গাড়ি চলছে। প্রায় ২ ঘণ্টা যানজট পড়ে পরিবার নিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছি।

এ প্রসঙ্গে ময়নামতি হাইওয়ে থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর বলেন, একলেন বন্ধ করে মহাসড়ক মেরামতের কাজ করার কারণে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে যানবাহনের চাপ বেশি থাকে। তাই সওজকে আপাতত কাজ বন্ধ রাখতে বলেছি। আমাদের দুটি টিম যানজট নিরসনে কাজ করছে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসছে।

এ প্রসঙ্গে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর, কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী রেজা-ই-রাব্বি জানান, এখন শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় মেরামত কাজ এগিয়ে নিতে হচ্ছে। এক লেনে গাড়ি চলছে। আর নিমসারে দুটি দুর্ঘটনাও ঘটেছে। তাই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তাই মানুষের সাময়িক অসুবিধা হচ্ছে। দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।



সাতদিনের সেরা