kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলা, জাবিতে বিক্ষোভ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৬ জানুয়ারি, ২০২২ ২২:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলা, জাবিতে বিক্ষোভ

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি ‌‌‌‌‌‌‌‌হামলার প্রতিবাদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

রবিবার রাত সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বর থেকে মিছিল বের করেন একদল শিক্ষার্থী। মিছিলটি কয়েকটি সড়ক ঘুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ার সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ হয়।

বিজ্ঞাপন

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ, হলের যাবতীয় অব্যবস্থাপনা দূর করে সুস্থ-স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত এবং ছাত্রীবান্ধব ও দায়িত্বশীল প্রাধ্যক্ষ কমিটি নিয়োগের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার থেকে আন্দোলন করছেন ওই হলের ছাত্রীরা। এসব দাবিতে রবিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন তাঁরা। বিকেলে উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে অবরুদ্ধ করে রাখেন আন্দোলনকারীরা। পরে পুলিশ সদস্যরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি ভবনে প্রবেশ করে অবরুদ্ধ উপাচার্যকে মুক্ত করতে যান। এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। পুলিশ শিক্ষার্থীদের লাঠিচার্জ, কাঁদানে গ্যাস এবং সাউন্ড গ্রেনেড ছোঁড়ে।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহবায়ক শোভন রহমান বলেন, 'একটা সময় এ দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা বলতেন, শিক্ষার্থীদের ওপর কোনো ধরনের নির্যাতনের আগে তাদের (শিক্ষকদের) ওপর হামলা চালাতে হবে। কিন্তু স্বাধীনতার ৫০ বছর পর এসে দেখছি, আন্দোলন হলে শিক্ষকেরা পুলিশ ডেকে এনে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। এভাবে হামলা করে শিক্ষার্থীদের ন্যায্য আন্দোলন নস্যাৎ করা যায় না। ’

আন্দোলন গোটা বাংলাদেশের ঘরে ঘরে জ্বলে উঠবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। সব শিক্ষার্থী একজোট হয়ে আন্দোলনে নেমে দেশের সব অনিয়ম দূর করবে বলেও উল্লেখ করেন শোভন রহমান।

ছাত্র ইউনিয়নের বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের দপ্তর সম্পাদক ঋদ্ধ অনিন্দ্য গাঙ্গুলি বলেন, 'নিরস্ত্র ছাত্ররা নিজেদের দাবি-দাওয়া নিয়ে গিয়েছিল, তাঁদের ওপর পুলিশি হামলা চালানো হয়েছে। এটি সব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের ঘৃণ্য চিত্র। যেখানেই সুষ্ঠু আন্দোলন হয়েছে সেখানেই সরকারের পেটোয়া বাহিনীকে ব্যবহার করে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এই সিস্টেম ভেঙে দিতে হবে। ’

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদের সঞ্চালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং অর্গানাইজেশনের সহসভাপতি তাপসী দে। বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অর্ধশত শিক্ষার্থী অংশ নেন।



সাতদিনের সেরা