kalerkantho

রবিবার । ৯ মাঘ ১৪২৮। ২৩ জানুয়ারি ২০২২। ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

৫ মিনিট স্তব্ধ ছিল নেত্রকোণা!

বারহাট্টা (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি   

৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ২১:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৫ মিনিট স্তব্ধ ছিল নেত্রকোণা!

জমিয়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ’র (জেএমবি) বোমা হামলায় নিহতদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা আর গণজাগরণের মাধ্যমে সন্ত্রাসী ও জঙ্গীবাদী কর্মকাণ্ড নির্মূলের দীপ্ত শপথে বুধবার “স্তব্ধ নেত্রকোণা” কর্মসূচি পালন করেছে “নেত্রকোণাবাসী। এ সময় শহরে যানবাহন চলেনি, পথিক যে যেখানে ছিল দাঁড়িয়ে যায়, সবাই কাজ ফেলে রাস্তায় নেমে আসে।

২০০৫ সালের এইদিন জেএমবি’র জঙ্গীরা নেত্রকোনা জেলা শহরের অজহর রোডে অবস্থিত উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কার্যালয়ের সামনে আত্মঘাতি বোমা হামলা চালায়। হামলায় উদীচীর সহ-সাধারণ সম্পাদক খাজা হায়দার হোসেন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুদীপ্তা পাল শেলীসহ ৮ ব্যক্তি ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান।

বিজ্ঞাপন

নিহত অন্যরা হলেন মোটর গ্যারেজ কর্মচারী যাদব দাস, গৃহিণী রানী আক্তার, মাছ বিক্রেতা আফতাব উদ্দিন, রিকশাচালক রইছ উদ্দিন, ভিক্ষুক জয়নাল আবেদীন। হামলার ঘটনায় কাফি নামে আত্মঘাতী এক কিশোরও মারা যায়। এ ছাড়া এই ঘটনায় আহত হন ঘটনাস্থলে ছুটে আসা অন্তত ৫০ উৎসুক ব্যক্তি।

এই নারকীয় ঘটনায় নিহতদের শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করে আসছে নেত্রকোনাবাসী। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন সম্মিলিতভাবে প্রতিবছর ৮ ডিসেম্বর নেত্রকোণা ট্র্যাজিডি দিবস পালন করে আসছে। আজ বুধবার নেত্রকোণা ট্র্যাজেডি দিবস উদ্যাপন কমিটির উদ্যোগে সকালে জেলা শহরের অজহর রোডস্থ উদীচী কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন ও কালো ব্যাজ ধারণের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে নিহতদের স্মরণে উদীচী কার্যালয়ের সামনে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পমাল্য অর্পণ করার পর বোমা হামলায় নিহতদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য যেখানে ছিল সেখানেই ৫ মিনিট নীরবে দাড়িয়ে ‘স্তব্ধ নেত্রকোনা’ কর্মসূচি পালন করে।

এরপর সকাল ১১টায় স্থানীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে প্রতিবাদী মিছিল বের হয়ে জেলা শহর প্রদক্ষিণ করে। দুপুরে শহীদদের কবর জিয়ারত, শ্মশানের স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শহীদ পরিবারবর্গের সাথে সাক্ষাত অনুষ্ঠিত হয়। বিকালে স্থানীয় শহীদ মিনারে সন্ত্রাস মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সমাবেশ এবং প্রতিবাদী গণজাগরণী সঙ্গীত অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

সকালে স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পমাল্য অর্পণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক তফসীর উদ্দিন খানসহ সর্বস্তরের মানুষজন।  



সাতদিনের সেরা