kalerkantho

রবিবার । ৯ মাঘ ১৪২৮। ২৩ জানুয়ারি ২০২২। ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আবাসিক হোটেলে নারীকে ধর্ষণ, পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

খুলনা অফিস   

৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ২০:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আবাসিক হোটেলে নারীকে ধর্ষণ, পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

গেপ্তার জাহাঙ্গীর আলম।

খুলনায় শিশু কন্যার চিকিৎসা করাতে এসে আবসিক হোটেলে গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. জাহাঙ্গীর আলমের ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী (২৮)। এ ঘটনায় পুলিশ জাহাঙ্গীরকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে নগরীর লোয়ার যশোর রোডের হোটেল সুন্দরবনে এ ঘটনা ঘটে। আজ বুধবার এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী খুলনা সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

বিজ্ঞাপন

অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম (৪৪) খুলনা জেলা ডিবিতে কর্মরত রয়েছেন। তিনি চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুরহুদা উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের মো. আতিয়ার রহমানের ছেলে।

মামলা এজাহারে জানা গেছে, ভুক্তভোগী নারী বাগেরহাটের মোংলা থেকে তাঁর মেয়েকে ডাক্তার দেখার জন্য মঙ্গলবার খুলনায় আসেন। কিন্তু চিকিৎসকের সিরিয়াল না পেয়ে রাতে থাকার জন্য নগরীর সুন্দরবন হোটেলের অবস্থান নেন। ওই হোটেলে তাঁর ভাগ্নে অপর রুমে অবস্থান করছিলের। মঙ্গলবার রাত ২টা ৫০ মিনিটে ডিবির সাব ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম রুমে ঢুকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। মামলার ভয় দেখায়। এক পর্যায়ে ওই নারীকে তাঁর ১১ বছরের শিশুকন্যার সামনে ধর্ষণ করেন। এ সময় তাদের চিৎকারে হোটেলবয়, ভুক্তভোগীর ভাগ্নেসহ অন্যরা এগিয়ে আসলে জাহাঙ্গীর রুম থেকে বেড়িয়ে যায়।  

খবর পেয়ে হোটেল মালিক বিষয়টি পুলিশকে জানান ও হোটেলের প্রধান ফটক বন্ধ করে দেন। পরে পুলিশ এসে জাহাঙ্গীরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পুলিশ ওই নারীর মামলায় জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। ভুক্তভোগী নারীকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

খুলনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, পুলিশ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখছে। এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা