kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন বোয়ালমারী উপজেলা

বিএনপি দলীয় প্রতীক না দিলেও স্বতন্ত হয়ে লড়ছেন ১৮ নেতা

বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৯:৩৩ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিএনপি দলীয় প্রতীক না দিলেও স্বতন্ত হয়ে লড়ছেন ১৮ নেতা

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার ১০ ইউনিয়নে চতুর্থ ধাপে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সারা দেশে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ না নিলেও স্বতন্ত্র পরিচয়ে মাঠে নেমেছেন বিএনপির প্রার্থীরা। এসব ইউনিয়নে উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

বোয়ালমারী উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে বিএনপির ১৮ নেতা চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মনোনয়ন পত্র জমা দিয়ে যাচাই বাছাইতে টিকে রয়েছেন। এদের মধ্যে দুইজন বিএনপি সমর্থিত বর্তমান চেয়ারম্যানও রয়েছেন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রার্থীতা প্রত্যাহার ৬ ডিসেম্বর, প্রতীক বরাদ্দ ৭ ডিসেম্বর ও ভোট গ্রহন ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গুণবহা ইউনিয়নে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মো. সিরাজুল ইসলাম এবং তাঁর আপন ছোট ভাই উপজেলা বিএনপির নির্বাহী সদস্য মো. আবুল বাশার বিপ্লব; ময়না ইউনিয়নে উপজেলা বিএনপির নির্বাহী সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. মশিউল আজম মৃধা এবং উপজেলা জিয়া পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. এসএম আশরাফুল আলম; বোয়ালমারী সদর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ মো. আতিয়ার রহমান মোল্লা, উপজেলা বিএনপির সাবেক নির্বাহী সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান একেএম হামিদুল বারী ওরফে বরুন মিয়া এবং বিএনপির সমর্থক মো. মিজানুর রহমান; সাতৈর ইউনিয়নে ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক সাংসদ খন্দকার নাসিরুল ইসলামের আপন ছোট ভাই ও সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খন্দকার নাজিরুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. জাকির হোসেন ওরফে লাল মিয়া, ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মো. রাফিউল আলম মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন ওরফে টিআই; দাদপুরে ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মো. আবুল কাশেম কাজী ও উপজেলা বিএনপির তাঁতী বিষয়ক সম্পাদক মো. জালাল উদ্দীন মোল্লা; চতুলে ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. কামরুল ইসলাম উজ্জল ও ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি মো. ফিরোজ মোল্লা; পরমেশ্বরদী ইউনিয়নে উপজেলা ওলামা দলের যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ আমিনুর রহমান; শেখর ইউনিয়নে উপজেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান মো. রইসুল ইসলাম পলাশ চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হিসেবে লড়বেন।

বোয়ালমারী উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মজিবর রহমান বাবু নির্বাচনে ১৮ প্রার্থীর দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করেছেন।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও গুণবহা ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. মো. সিরাজুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, দলীয় মনোনয়ন ঘোষণার পর আওয়ামী লীগের ঘরে এখন বিদ্রোহের আগুন জ্বলছে। উপজেলার ১০ ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীর বিপরীতে প্রায় দ্বিগুণ সংখ্যক বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যানেরা দলটির বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা অধিকাংশই জাঁদরেল ও প্রভাব বিস্তারকারী। আ. লীগের এই অন্তদ্বন্দ্ব আর বিএনপির প্রতি ভোটারদের আগ্রহের কারণে এ উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে আমাদের প্রার্থীরা শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে মাঠে রয়েছেন।

বোয়ালমারী পৌর বিএনপির সভাপতি শেখ আফসার উদ্দিন বলেন, গত সংসদ নির্বাচনে মানুষ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নিজেদের ভোট ঠিক মতো দিতে পারেনি। দলটির প্রতি ভোটারদের এই ক্ষোভ ও নিজেদের কোন্দলের কারণে উপজেলার ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৬টিতে বিএনপির প্রার্থীরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। বিএনপির প্রার্থীদের সাথে কোনো ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আবার কোনোটিতে নৌকার প্রার্থীর লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি। 

প্রসঙ্গত, উপজেলার ১০ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত ১০, জাতীয় পাটি (লাঙ্গল) ১, ইসলামী আন্দোলন (হাত পাখা) ৫, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ২২, বিএনপির ১৮, স্বতন্ত্র ৫ জন মিলে মোট ৬১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন। 



সাতদিনের সেরা