kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ

শেরপুরে ধর্ষকের যাবজ্জীবন, সহযোগীর ১৪ বছরের সাজা

শেরপুর প্রতিনিধি    

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৬:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেরপুরে ধর্ষকের যাবজ্জীবন, সহযোগীর ১৪ বছরের সাজা

শেরপুরে ঝিনাইগাতীর পাইকুড়া এলাকার অষ্টম শ্রেণিপড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ মামলার রায়ে ধর্ষকের যাবজ্জীবন ও ১৪ বছর এবং সহযোগী ছানা মিয়াকে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আক্তারুজ্জামান ১ ডিসেম্বর বুধবার দুপুরে এ সাজার রায় ঘোষণা করেন। সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষক শফিকুল ইসলাম (৩১) ঝিনাইগাতীর কালিনগর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে এবং সহযোগী ছানা মিয়া (৩৮) হাসলিগাঁও গ্রামের সেকান্দর বাদশাহর ছেলে।  

শেরপুর নারী ও শিশু আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু রায়ের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি মামলার নথির উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, ঝিনাইগাতীর পাইকুড়া গ্রামের ওই স্কুলছাত্রীকে ২০১৫ সালের ২০ মে সন্ধ্যায় চাচার বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে সাজাপ্রাপ্তরা জোরপূর্বক রাস্তা থেকে অপহরণ করে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে শেরপুর, জামালপুর, ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে নিয়ে শফিকুল তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। বাবার দায়ের করা মামলায় পুলিশ ২ মাস পর ভিকটিমকে উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেপ্তার করে তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ২২ সেপ্টেম্বর ঝিনাইগাতী থানার তৎকালীন এসআই খোকন মিয়া আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বিচারিক পর্যায়ে ১১ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আজ বুধবার এ সাজার রায় ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনালের বিচারিক।  

রায়ে একইসাথে ধর্ষককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশও দেওয়া হয়েছে। এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষের পিপি সন্তোষ প্রকাশ করলেও আসামিপক্ষের আইনজীবী জাহিদুল হক আধার উচ্চ আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার কথা জানান।  



সাতদিনের সেরা