kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

শেরপুরের শ্রীবরদী

পাওনা টাকা আনতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, গ্রেপ্তার ৩

শ্রীবরদী ( শেরপুর) প্রতিনিধি   

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৪:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাওনা টাকা আনতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, গ্রেপ্তার ৩

প্রতীকী ছবি

শেরপুরের শ্রীবরদীতে এক গৃহবধূকে (২০) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত ২৯ নভেম্বর শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের চারতলা ভবনে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ গতকাল মঙ্গলবার তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।  

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার লঙ্গরপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে কামরুজ্জামান (২৩), দুদু মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৭) ও জামালপুরের দেউরপাড়া গ্রামের আব্দুল শেকের ছেলে ও ওই বিদ্যালয়ের নৈশ্য প্রহরি আয়নাল হক (৫০।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ বাদী হয়ে গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শ্রীবরদী থানায় মামলা করেছেন।   
 
পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন আগে ওই গৃহবধূ উপজেলার উত্তর খড়িয়া গ্রামের বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। কিছুদিন আগে গ্রেপ্তারকৃত কামরুজ্জামান গৃহবধূর কাছ থেকে এক হাজার টাকা ধার নেন। গত সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূ কামরুজ্জামানের কাছে তার পাওনা টাকা চান। এরপর সোমবার সন্ধ্যায় টাকা দেওয়ার কথা বলে কামরুজ্জামান ও তার সহযোগী শফিকুল ইসলাম গৃহবধূকে লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ডেকে নেন। সেখানে নৈশপ্রহরী আয়নাল হক বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক খুলে ওই গৃহবধূকে বিদ্যালয় ভবনের চার তলায় নিয়ে যায়। রাত ১০টার দিকে কামরুজ্জামান, শফিকুল ও নৈশপ্রহরী আয়নাল ও তার সহযোগীরা জোরপূর্বক ওই গৃহবধূকে গণধর্ষণ করেন। পরে গৃহবধূকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেন। এ সময় ঘটনার কথা কাউকে না বলার জন্য হুমকিও দেওয়া হয়। পরে ভুক্তভোগী তার পরিবারের কাছে ধর্ষণের ঘটনাটি জানান।  

শ্রীবরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল হাশিম বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে গ্রেপ্তার তিনজনের নামে ও অজ্ঞাতনামা আরো দুজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শ্রীবরদী থানায় মামলা করেছেন। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণ ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ডাক্তারি পরীক্ষা করার জন্য ভুক্তভোগী গৃহবধূকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



সাতদিনের সেরা