kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর, চলছে জাতীয় পতাকা বিক্রির হিড়িক

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি   

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিজয়ের মাস ডিসেম্বর, চলছে জাতীয় পতাকা বিক্রির হিড়িক

রাত পোহালেই শুরু বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। ষোলোই ডিসেম্বর বিজয় দিবস সামনে রেখে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার পাড়া-মহল্লা ও স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে শহরের অলিগলিতে মৌসুমি পতাকা বিক্রেতারাও হাঁকডাক দিয়ে বিক্রি করছেন দেশের জাতীয় পতাকা। সোমবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে পৌরসভার শিমলা বাজার নাছির উদ্দীন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের প্রধান ফটকে দেখা যায় তেমনি এক মৌসুমি পতাকা বিক্রিতাকে।

বিজয়ের চেতনায় বিজয়ের মাসের শুরু থেকে জাতীয় পতাকা বিক্রির উৎসব শুরু হয়ে চলে বিজয় দিবস পর্যন্ত। মৌসুমি পতাকা বিক্রিতারা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যস্ত সময় পার করে জাতীয় পতাকা বিক্রি করে। বিজয়ের মাসে বাড়ির ছাদে, ঘরের বারান্দায়, এমনকি বিভিন্ন ব্যক্তিগত গাড়িতে লাল-সবুজের পতাকা উড়তে দেখা যায়। এজন্য সরিষাবাড়ীসহ সারা দেশে চলছে জাতীয় পতাকা বিক্রির ধুম।

কথা হয় মৌসুমি পতাকা বিক্রেতা জহির উদ্দিনের সঙ্গে। তিনি বলেন, টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুর উপজেলা থেকে এসেছেন তিনি। পেশায় একজন কৃষক সে। ৫ বছর যাবৎ বিজয় মাস আসলেই জাতীয় পতাকা বিক্রি করতে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে পতাকা বিক্রি করেন। প্রতিদিন ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা বিক্রি হয়। বিজয়ের মাসে সবাই পতাকা কিনে তাই ব্যবসাটাও ভালো হয়।

পতাকা কিনতে আসা নাছের উদ্দিন কিন্ডার গার্টেন স্কুলের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী আশা মনি, সবুজা আক্তার, লালন মিয়া, কাজরীসহ আরো অনেক শিক্ষার্থী বলেন, বিজয়ের মাস তাই পতাকা কিনছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে মানুষ যুদ্ধ করে এই লাল-সবুজ পতাকার বাংলাদেশ আমরা পেয়েছি। এই পতাকা আমরা বুকে ধারণ করে রাখতে চাই।

এ ব্যাপারে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোফাজ্জল হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে এই লাল-সবুজের বাংলাদেশ পেয়েছি। শুধু এই ১৬ই ডিসেম্বর আসলে বিজয়কে মনে রাখতে হবে সেটা যেন না হয়। অনেক শহীদদের রক্তে অর্জন করতে হয়েছে এই বাংলাদেশকে।  জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে আমাদের সবাইকে।



সাতদিনের সেরা