kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

প্রেমিকাকে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

৩০ নভেম্বর, ২০২১ ২২:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমিকাকে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড

কছিমুদ্দিন

রংপুরের কাউনিয়ায় রোজিনা বেগম নামে অজ্ঞাত পরিচয় এক নারীকে হত্যার মামলায় কছিমুদ্দিন (৩৯) নামের এক ট্রাকচালককে ফাঁসির দণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রংপুরের অতিরিক্ত  জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক তারিক হোসাইন এই আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত কছিমুদ্দিন কাউনিয়া উপজেলার জফুর উদ্দিনের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

 

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ৫ নভেম্বর কাউনিয়া উপজেলার কুর্শা বিলে রোজিনা বেগম নামের ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন। মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হলে দীর্ঘ তদন্তের মাধ্যমে বেরিয়ে আসে হত্যা রহস্যা।

ট্রাকচালক কছিমুদ্দিন ঢাকায় অবস্থানকালে তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক গৃহবধূ রোজিনা বেগমের সঙ্গে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে নারায়ণগঞ্জে একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে তারা দুজনে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে বসবাস করেন। এই সময়ে তাদের মধ্যে কলহ হলে কছিমুদ্দিন তাকে কৌশলে কাউনিয়ায় নিয়ে এসে তার খালার বাড়িতে তোলেন। দুই-তিন দিন পর ঘটনার দিন টেপামধুপুর নামক একটি জায়গায় রোজিনাকে বিয়ের দাওয়াত খাওয়ার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। বাড়ি ফেরার পথে চাকু দিয়ে রোজিনার গলা কেটে হত্যা করে কুর্শা বিলে ফেলে দিয়ে ঢাকায় চলে যায় কছিমুদ্দিন।

বেশ কয়েক মাস পর আসামি কছিমুউদ্দিন পুলিশের কাছে ধরা পরে। মামলার সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আসামি কছিমুদ্দিনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তৎকালীন সিআইডির পরিদর্শক নাজমুল কাদের জানান, অজ্ঞাত পরিচয় হিসেবে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত নারীর বাড়িঘরের পরিচয় পাওয়া যায়নি। আসামি শুধু জানিয়েছে নিহতের নাম রোজিনা বেগম। নাম জানা গেলেও ওই নারীর বাড়ি কোথায় এসব কিছু পাওয়া যায়নি। তাকে হত্যা করে লাশ গুম করা হয়েছিল।

রংপুর জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর ফারুক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, পুলিশ এবং রাষ্ট্রপক্ষ অজ্ঞাত পরিচয়ের নারীকে হত্যার বিষয়ে স্পষ্ট প্রমাণাদি আদালতে উপস্থাপন করার কারণেই আদালত তাকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন।



সাতদিনের সেরা